পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ত্রয়োবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৯৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আকাশপ্রদীপ । জীবনের রঙ্গমঞ্চে ওখানে রয়েছে পর্দা টালা, ওই থানে কালো বরনের মান । ঘটনার স্রোত নাহি বয়, নিস্তব্ধ সময় । হেtথা হতে তাই মনে দিত সাড়া সময়ের বন্ধ-ছাড়া ইতিহাস-পলtভক কাহিনীর কত স্বষ্টি ছাড়া স্থষ্টি নানা মতো । উপরের তল থেকে চেয়ে দেখে না-দেখা গভীরে শুর মায়ণপুরী এ কেছিছ মনে । নাগক দ্যা মানি কক্ষপণে সেথায় গাখিছে বেণী, কুঞ্চিত লহরিকার শ্রেণী ভেসে যায় বেঁকে বেকে যখন বিকেলে হা ওয়া জাগিয়া উঠিত থেকে থেকে । তীরে যত গাছপাল! পশুপাথি তারা আছে অন্তলোকে, এ শুধু একাকী । তাই সব যত কিছু অসম্ভব কল্পনার মিটাইত সাধ, কোথাও ছিল না তার প্রতিবাদ । তার পরে মনে হল একদিন, সাতারিতে পেল ষার পুথিবীতে তারাই স্বাধীন, বন্দী তার স্বারা পায় নাই । এ আঘাত প্রাণে নিয়ে চলিলাম তাই ভূষির নিষেধগত্তি হতে পার । অনাত্মীয় শক্রতার به ع