পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বাদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী তোরে হেথায় করবে সবাই মান। হঠাৎ আলো দেখবে যখন ভাববে এ কী বিষম কাওখানা। সংঘাতে তোর উঠবে ওরা রেগে, শয়ন ছেড়ে আসবে ছুটে বেগে, সেই স্বযোগে ঘুমের থেকে জেগে লাগবে লড়াই মিথ্যা এবং সঁাচায়। আয় প্রচণ্ড, আয় রে আমার কাচা । শিকল-দেবীর ঐ যে পূজাবেদী চিরকাল কি রইবে খাড়া। পাগলামি তুই আয় রে দুয়ার ভেদি । ঝড়ের মাতন, বিজয়-কেতন নেড়ে অট্টহাস্তে আকাশখানা ফেড়ে, ভোলানাথের ঝোলাকুলি ঝেড়ে ভুলগুলো সব আন রে বাছা-বাছা । আয় প্রমত্ত, আয় রে আমার কাচা । আন রে টেনে বাধা-পথের শেষে । বিবাগী কর অবাধপানে, পথ কেটে যাই অজানাদের দেশে । আপদ আছে, জানি আঘাত অাছে, তাই জেনে তো বক্ষে পরান নাচে, ঘুচিয়ে দে ভাই পুথি-পোড়োর কাছে পথে চলার বিধিবিধান যাচা। আয় প্রমুক্ত, আয় রে আমার কাচা । চিরযুবা তুই যে চিরজীবী, জীর্ণ জরা ঝরিয়ে দিয়ে প্রাণ অফুরান ছড়িয়ে দেদার দিবি ।