পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বাদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বলাকা কালো রাতের কালি-ঢালা ভয়ের বিষম বিষে আকাশ যেন মূৰ্ছি পড়ে সাগরসাথে মিশে, উতল ঢেউয়ের দল খেপেছে, না পায় তারা দিশে, উধাও চলে ধেয়ে । হেনকালে এ-দুদিনে ভাবল মনে কী সে কুলছাড়া মোর নেয়ে। এমন রাতে উদাস হয়ে কেমন অভিসারে আসে আমার নেয়ে । সাদা পালের চমক দিয়ে নিবিড় অন্ধকারে আসছে তরী বেয়ে । কোন ঘাটে যে ঠেকবে এসে কে জানে তার পাতি, পথহারা কোন পথ দিয়ে সে আসবে রাতারাতি, কোন অচেনা আঙিনাতে তারি পূজার বাতি রয়েছে পথ চেয়ে । অগৌরবার বাড়িয়ে গরব করবে আপন সাথি বিরহী মোর নেয়ে । এই তুফানে এই তিমিরে খোজে কেমন খোজা বিবাগী মোর নেয়ে । নাহি জানি পূর্ণ ক’রে কোন রতনের বোঝা আসছে তরী বেয়ে । নহে নহে, নাইকো মানিক, নাই রতনের ভার, একটি ফুলের গুচ্ছ আছে রজনীগন্ধার, সেইটি হাতে আঁধার রাতে সাগর হবে পার আনমনে গান গেয়ে । কার গলাতে নবীন প্রাতে পরিয়ে দেবে হার নবীন আমার নেয়ে ।