পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বাদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৩০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বলাকা সন্ধ্যারক্তরাগসম তন্দ্রগতলে হয় হোক লীন, কেবল একটি দীর্ঘশ্বাস নিত্য-উচ্ছসিত হয়ে সকরুণ করুক আকাশ এই তব মনে ছিল আশ । হীরামুক্তামাণিক্যের ঘট। যেন শূন্য দিগস্তের ইন্দ্রজাল ইন্দ্ৰধন্থচ্ছটা যায় যদি লুপ্ত হয়ে যাক, কালের কপোলতলে শুভ্র সমুজ্জল এ তাজমহল। হায় ওরে মানবহৃদয়, বার বার কারো পানে ফিরে চাহিবার নাই যে সময়, নাই নাই । জীবনের খরস্রোতে ভাসিছ সদাই ভুবনের ঘাটে ঘাটে ;– এক হাটে লও বোঝা, শূন্ত করে দাও অন্য হাটে । দক্ষিণের মন্ত্রগুঞ্জরণে তব কুঞ্জবনে বসন্তের মাধবীমঞ্জরী ষেই ক্ষণে দেয় ভরি মালঞ্চের চঞ্চল অঞ্চল, বিদায়-গোধূলি আসে ধুলায় ছড়ায়ে ছিন্নদল । সময় যে নাই ; অণবণর শিশিররাত্রে তাই নিকুঞ্জে ফুটায়ে তোল নব কুন্দরাজি, সাজাইতে হেমস্তের অশ্রুভরা আনন্দের সাজি । X (t