পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বাদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বলাকা যেথা তব বিরহিণী প্রিয়৷ রয়েছে মিশিয়া প্রভাতের অরুণ-আভাসে, ক্লাস্তসন্ধ্যা দিগন্তের করুণ নিশ্বাসে, পূর্ণিমায় দেহহীন চামেলির লাবণ্যবিলাসে, ভাষার অতীত তীরে কাঙাল নয়ন যেথা দ্বার হতে আসে ফিরে ফিরে । তোমার সৌন্দৰ্যদূত যুগ যুগ ধরি এড়াইয়া কালের প্রহরী চলিয়াছে বাক্যহীরা এই বার্তা নিয়া “ভুলি নাই, ভুলি নাই, ভুলি নাই প্রিয়া চলে গেছ তুমি আজ, মহারাজ ; রাজ্য তব স্বপ্নসম গেছে ছুটে, সিংহাসন গেছে টুটে ; তব সৈন্যদল যাদের চরণভরে ধরণী করিত টলমল তাহীদের স্মৃতি আজ বায়ুভরে উড়ে যায় দিল্লীর পথের ধূলি-পরে। বন্দীর গাহে না গান ; যমুনা-কল্লোলসাথে নহবত মিলায় না তান ; তব পুরস্কন্দরীর নূপুরনিকণ ভগ্ন প্রাসাদের কোণে ম’রে গিয়ে ঝিল্লীস্বনে কঁপদায় রে নিশার গগন । তবুও তোমার দূত অমলিন, শ্রান্তিক্লাস্তিহীন, তুচ্ছ করি রাজ্য-ভাঙাগড়া, S a