পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বাদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৬৪২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গ্রন্থপরিচয় ○ぬ তাহার প্রধান কারণ, বিদেশী ভাষার ভার বড়ো গুরুতর। একজনের খোলস আর-একজনের স্কন্ধে চাপাইলে সে কখনোই তাহ লইয়া বেশ স্বাধীন সহজভাবে চলিতে পারে না। আমাদের ভাবকে বিদেশী ভাষার বোঝা কাধে লইয়া চলিতে হয়, প্রতি পদে পদস্থলনের ভয়ে তাহাকে বড়ো সাবধানে অগ্রসর হইতে হয়, কোনোমতে মান বঁাচাইয়। বাধ। রাস্ত ধরিয়৷ চলিতে পারিলেই তাহার পক্ষে যথেষ্ট । কিন্তু ততটুকু করাই এত কঠিন যে, সেইটুকু স্বসম্পন্ন করিলেই পরম একটা গৌরব ভব করা যায়, সেটাকে খুব-একটা মহৎ ফললাভ বলিয়। ভ্রম হয়। অন্য দেশে একট। বড়ো কাজের যতট। মূল্য, আমাদের দেশে একটা অবিকল নকলের মূল্য তাহ অপেক্ষ। অল্প নহে। এতটা করিয়া যাহা হইল তাহ যে কিছুই নহে, এ কথা লোককে বোঝানো বড়ো শক্ত। এইজন্য মুখুজ্যের ছেলেকে গড়গড় শব্দে ইংরেজি বক্তৃত। করিতে শুনিলে বাড়য্যের ছেলেকেও সেই চূড়ান্ত গৌরব হইতে বঞ্চিত করিতে তাহার বাপের প্রবৃত্তি হয় না। তখন যদি তাহাকে বুঝাইতে বসা যায় যে, বার্ক, ব্রাইটু গ্লাডস্টেশনের ভাষার সহিত প্রচুর পরিমাণে পানাপুকুরের জল মিশাইয়া একটি বঙ্গশাবক যে বহুকষ্টে অথবা অল্পায়াসে গোটকতক অকিঞ্চিৎকর কথা বলিয়া গেল, উহাতে কোনো কাজই হইল . না, উহ ন৷ অামাদের দেশের অন্তঃকরণে স্থায়ী হইল, না বিলাতি সাহিত্যে প্রবেশ লাভ করিল— কেবল নিস্ফল শিলাবৃষ্টির ন্যায় অত্যন্ত ক্ষণস্থায়ী চট্‌পট্‌ শব্দের করতালি আকর্ষণ করিয়া শস্যবীজহীন পথকদমের সহিত মিশাইয়া গেল ; উহ। অপেক্ষ বাংলাভাষায় ভাব প্রকাশ করিবার চেষ্টারও সহস্ৰগুণ সফলতা আছে – তবে এ-সব কথা বাড়য্যের কর্ণে স্থান লাভ করে না, মুখুজ্যের ছেলের ইংরেজি ফাক আওয়াজের কাছে স্বদেশের সমস্ত দাবি তাহার নিকট এতই ক্ষীণ বলিয়া প্রতীয়মান হয় । বুঝাইবার পক্ষে আর-একটা বড়ো বাধা আছে। অনেকে এমন কথা মনে করেন, আমরাও তো আধুনিক প্রণালীতে শিক্ষালাভ করিয়াছি ; কই আমাদের মানসিক ঔৎকর্ষ সম্বন্ধে আমাদের মনে তো কখনও তিলমাত্র সংশয় উপস্থিত হয় না। বুঝিতে পড়িতে কহিতে বলিতে আমরা তো বড়ো কম নহি । সে কথা অস্বীকার করিয়া কাজ নাই। র্তাহাদিগকে বলা যাক, আপনার কিছুতেই নূ্যন নহেন। কিন্তু আরও ঢের বেশি হইতে পারিতেন। এখনই যদি অাপিসের কাজ স্বশৃঙ্খলমতো নির্বাহ করিয়া জগৎকে চমৎকৃত করিয়া দিতে পারিতেছেন, বিদেশী ভাষার বাধা অতিক্রম করিতে না হইলে না জানি কী হইতেন এবং কী করিতেন। র্তাহাদিগকে আরও বলা যাইতে পারে যে, আপনাদের কথা স্বতন্ত্র। আপনারা যে এমন প্রতিকুল অবস্থার মধ্যেও এত বড়ো হইয়া উঠিয়াছেন, তাহাতে আপনাদেরই বিশেষ মাহাত্ম্য প্রকাশ পাইতেছে, শিক্ষণপ্রণালীর নহে । কিন্তু দেশের সকলেই তো আপনাদের মতো হইতে পারে না। শিক্ষায় স্বদেশী ভাষা অবলম্বন করিলে কেন যে মনের বিশেষ উন্নতি হয় সে কথা পূর্বে বলিয়াছি। যে-সৌভাগ্যবান সভ্যজাতির দেশীভাষায় শিক্ষালাভ করে তাহার প্রথম হইতেই ধারণা করিবার, চিস্তা করিবার অবসর পায়। আরম্ভ হইতেই তাহদের ভাব প্রকাশ করিবার সুযোগ ঘটে। কেবল যে কতকগুলা মুখস্থ জ্ঞান অর্জন হয় তাহা নহে, মানসিক শক্তির বিকাশ হইতে থাকে। o