পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বাদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী মরিতে ছুটিছে শত শত প্রভাত-আলোর পানে লক্ষ লক্ষ নক্ষত্রের মতো । বীরের এ রক্তস্রোত, মাতার এ অশ্রধারা এর যত মূল্য সে কি ধরার ধুলায় হবে হার । স্বৰ্গ কি হবে না কেন। বিশ্বের ভাণ্ডারী শুধিবে ম৷ এত ঋণ ? রাত্রির তপস্তা সে কি আনিবে না দিন । নিদারুণ দুঃখরাতে মৃত্যুঘাতে মানুষ চুর্ণিল যবে নিজ মর্তসীমা তখন দিবে না দেখা দেবতার অমর মহিমা ? ২৩ কাতিক ১৩২২ কলিকাতা Ob সর্বদেহের ব্যাকুলত কী বলতে চায় বাণী, তাই আমার এই নৃতন বসনখানি। নূতন সে মোর হিয়ার মধ্যে দেখতে কি পায় কেউ। সেই নৃতনের ঢেউ অঙ্গ বেয়ে পড়ল ছেয়ে নূতন বসনখানি। দেহ-গানের তান যেন এই নিলেম বুকে টানি । আপনাকে তো দিলেম তারে, তৰু হাজার বার নূতন করে দিই যে উপহার। চোখের কালোয় নূতন আলো ঝলক দিয়ে ওঠে, নূতন হাসি ফোটে, তারি সঙ্গে, যতনভরা নূতন বসনখানি অঙ্গ আমার নূতন করে দেয়-যে তারে আনি।