পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বাদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৯৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ԳՆ) রবীন্দ্র-রচনাবলী 86 পুরাতন বৎসরের জীর্ণক্লাস্ত রাত্রি ওই কেটে গেল, ওরে যাত্রী। তোমার পথের পরে তপ্ত রৌদ্র এনেছে আহবান রুদ্রের ভৈরব গান । দূর হতে দূরে বাজে পথ শীর্ণ তীব্র দীর্ঘতান সুরে, যেন পথহারা কোন বৈরাগীর একতারা। ওরে যাত্রী, ধূসর পথের ধুলা সেই তোর ধাত্রী ; চলার অঞ্চলে তোরে ঘূর্ণাপাকে বক্ষেতে আবরি ধরার বন্ধন হতে নিয়ে যাক হরি’ দিগস্তের পারে দিগন্তরে । ঘরের মঙ্গলশঙ্খ নহে তোর তরে, নহে রে সন্ধ্যার দীপালোক, নহে প্রেয়সীর অশ্র-চোখ । পথে পথে অপেক্ষিছে কালবৈশাখীর আশীর্বাদ, শ্রাবণরাত্রির বজ্রনাদ । পথে পথে কণ্টকের অভ্যর্থনা, পথে পথে গুপ্তসৰ্প গৃঢ়ফণী । নিন্দা দিবে জয়শঙ্খনাদ এই তোর রুজের প্রসাদ । ক্ষতি এনে দিবে পদে অমূল্য অদৃশু উপহার চেয়েছিলি অমৃতের অধিকার— সে তো মহে সুখ, ওরে, সে নহে বিশ্রাম, নহে শাস্তি, নহে সে আরাম ।