পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বাবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১০৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শাপমোচন br● সারাদিন সঙ্গোপনে স্বধারস ঢালবে মনে পরানের পদ্মবনে বিরহের বীণাপাণি ॥ মধুত্র জন্ম নিল মন্দ্ররাজকুলে, নাম নিল কমলিকা। স্বৰ্গলোক থেকে যে আত্মবিস্মৃত বিরহবেদনা সঙ্গে এনেছে অরুণেশ্বর, যৌবনে তার তাপ উঠল প্রবল হয়ে । জাগরণে যায় বিভাবরী, আঁখি হতে ঘুম নিল হরি। যার লাগি ফিরি এক এক, আঁখি পিপাসিত নাহি দেখা, তারি বাশি ওগো তারি বাশি তারি বাশি বাজে হিয়া ভরি। বাণী নাহি তবু কানে কানে কী যে শুনি তাহা কেবা জানে। এই হিয়া-ভরা বেদনাতে বারি-ছলছল আঁখিপাতে ছায়া দোলে তারি ছায়া দোলে ছায়া দোলে দিবানিশি ধরি ॥ তাপার্ত মন খুজে বেড়ায় অনাবৃষ্টিতে তৃষ্ণার জল, বীণা কোলে নিয়ে গান করে— এসো এসে হে তৃষ্ণার জল, ভেদ করে কঠিনের বক্ষস্থল, কলকল ছলছল। এসে এসো উৎসস্রোতে গৃঢ় অন্ধকার হতে, এসে হে নিৰ্মল, কলকল ছলছল। রবিকর রহে তব প্রতীক্ষায়, তুমি ষে খেলার সাথি, সে তোমারে চায়।