পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বাবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৩২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


\S)e © রবীন্দ্র-রচনাবলী আমার একেবারে গেছে । কিন্তু, যাই বল মা, এ ভারি অন্যায়। আমি তো এতদিনে বাবার সম্পত্তি পেতেম, তার থেকে বঞ্চিত হলেম, তার পরে যদি আবার— বিধু। অন্যায় নয় তো কী, সতীশ । এ দিকে তোকে ঘরে এনেছেন, ও দিকে আবার ডাক্তার ডাকিয়ে ওষুধও খাওয়া চলছে। নিজের বোনপোর সঙ্গে এ কিরকম ব্যবহার । শেষকালে দয়াল ডাক্তারের ওষুধ তো খেটে গেল। অস্থির হোস নে সতীশ । একমনে ভগবানকে ডাক— তার কাছে কোনো ডাক্তারই লাগে না । তিনি যদি— সতীশ । আহা, তিনি যদি এখনো— এখনো সময় আছে । মা, এদের প্রতি আমার কৃতজ্ঞ থাকা উচিত, কিন্তু যেরকম অন্তায় হল, সে ভাব রক্ষা করা শক্ত হয়ে উঠেছে। ঈশ্বরের কাছে এদের একটা দুর্ঘটনা না প্রার্থনা করে থাকতে পারছি নে— তিনি দয়া করে যেন— বিধু । আহ তাই হোক, নইলে তোর উপায় কী হবে সতীশ, আমি তাই ভাবি । হে ভগবান, তুমি যেন— 配 সতীশ । এ যদি না হয় তবে ঈশ্বরকে আমি আর মানব না। কাগজে নাস্তিকতা প্রচার করব । বিধু। আরে চুপ চুপ, এখন এমন কথা মুখে আনতে নেই। তিনি দয়াময়, র্তার দয়া হলে কী না ঘটতে পারে। সতীশ, তুই আজ এত ফিট্‌ফাটু সাজ করে কোথায় চলেছিস । উচু কলার পরে মাথা যে আকাশে গিয়ে ঠেকল ! ঘাড় ইেট করবি কী করে । সতীশ । এমনি করে কলারের জোরে যতদিন মাথা তুলে চলতে পারি চলব, তার পরে ঘাড় হেঁট করবার দিন যখন আসবে তখন এগুলো ফেলে দিলেই চলবে । বিশেষ কাজ আছে মা, চললেম, কথাবার্তা পরে হবে । প্রস্থান বিধু। কাজ কোথায় আছে তা জানি । মাগে, ছেলের আর তর সয় না। এ বিবাহটা ঘটবেই । আমি জানি, আমার সতীশের অদৃষ্ট খারাপ নয় ; প্রথমে বিঘ্ন যতই ঘটুক, শেষকালটায় ওর ভালো হয়ই, এ আমি বরাবর দেখে আসছি । না হবেই বা কেন । আমি তো জ্ঞাতসারে কোনো পাপ করি নি— আমি তে। সতী স্ত্রী ছিলাম, সেইজন্তে আমার খুব বিশ্বাস হচ্ছে দিদির এবারে—