পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বাবিংশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৮২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


१९ রবীন্দ্র-রচনাবলী ওরে গৃহবাসী, তোরা খোল দ্বার খোল, লাগল-যে দোল । স্থলে জলে বনতলে ञां*ॉल-८ष Ciळ । খোল দ্বার খোল । রাঙা হাসি রাশি রাশি অশোকে পলাশে, রাঙা নেশা মেঘে মেশা প্রভাত-আকাশে, নবীন পাতায় লাগে রাঙা হিল্লোল । খোল দ্বার খোল । বেণুবন মর্মরে দখিনবাতাসে, প্রজাপতি দোলে ঘাসে ঘাসে– মউমাছি ফিরে যাচি ফুলের দখিনা, পাখায় বাজায় তার ভিখারির বীণা, মাধবীবিতানে বায়ু গন্ধে বিভোল। খোল দ্বার খোল । আমি সকল নিয়ে বসে আছি সর্বনাশের অাশায়, আমি তার লাগি পথ চেয়ে অাছি পথে যে জন ভাসায় । যে জন দেয় না দেখা, যায় যে দেখে, ভালোবাসে আড়াল থেকে, আমার মন মজেছে সেই গভীরের গোপন ভালোবাসায় ॥ সর্বনাশের ব্রত যাদের তাদের ভয় ভাঙিয়ে দাও । কারো কারো যে দ্বিধা ঘোচে না। ওই দেখে-না পাতার আড়ালে মাধবী। ওই অবগুষ্ঠিতাদের সাহস দাও। শুনছ না বকুলগুলো ঝরতে ঝরতে বলছে ‘যা হয় তা হোক গে’, আমের মুকুল বলে উঠছে ‘কিছু হাতে রাখব না’। যারা কৃপণতা করবে তাদের সময় বয়ে যাবে।