পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বিতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১২০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


9 ०२ রবীন্দ্র-রচনাবলী সিন্ধুতীরে হেথা নাই ক্ষুদ্র কথা, তুচ্ছ কানাকানি, ধ্বনিত হতেছে চির-দিবসের বাণী । চির-দিবসের রবি ওঠে অস্ত যায়, চির-দিবসের কবি গাহিছে হেথায় । ধরণীর চারি দিকে সীমাশূন্ত গানে সিন্ধু শত তটিনীরে করিছে আহবান, হেথায় দেখিলে চেয়ে আপনার পানে দুই চোখে জল আসে, কেঁদে উঠে প্ৰাণ । শত যুগ হেথা বসে মুখপানে চায়, বিশাল আকাশে পাই হৃদয়ের সাড়া । তীব্র বক্র ক্ষুদ্র হাসি পায় যদি ছাড়া রবির কিরণে এসে মরে সে লজ্জায় । সবারে আনিতে বুকে বুক বেড়ে যায়, সবারে করিতে ক্ষমা আপনারে ছাড়া ॥ সত্য > ভয়ে ভয়ে ভ্ৰমিতেছি মানবের মাঝে হৃদয়ের আলোটুকু নিবে গেছে বলে ; কে কী বলে তাই শুনে মরিতেছি লাজে, কী হয় কী হয় ভেবে ভয়ে প্রাণ দোলে । “আলো” “জালো" খুঁজে মরি পরের নয়নে, “আলো” “আলো" খুঁজে খুজে কাদি পথে পথে, অবশেষে শুয়ে পড়ি ধূলির শয়নে ভয় হয় এক পদ অগ্রসর হতে ।