পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বিতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ჯ •ხr রবীন্দ্র-রচনাবলী যুগযুগান্তর ধরে ফুল ফুটে, ফুল ঝরে তাই ? প্রাণ পেয়ে প্রাণ দিই সে কি শুধু মরণের পায় ? এ ফুল চাহে না কেহ ? লহে না এ পূজা-উপহার ? এ প্রাণ, প্রাণের আশা, টুটে কি অসীম শূন্ততায় । বিশ্বের উঠিছে গান, বধিরতা বসি সিংহাসনে ? বিশ্বের কাদিছে প্রাণ, শূন্তে ঝরে অশ্রুবারিধার ? যুগযুগাস্তের প্রেম কে লইবে, নাই ত্রিভূবনে ? চরাচর মগ্ন আছে নিশিদিন আশার স্বপনে— বাশি শুনি চলিয়াছে, সে কি হায় বৃথা অভিসার । ব’লো না সকলি স্বপ্ন, সকলি এ মায়ার ছলন, বিশ্ব যদি স্বপ্ন দেখে সে স্বপন কাহার স্বপন ? সে কি এই প্রাণহীন প্রেমহীন অন্ধ অন্ধকার ? 8 ধ্বনি খুঁজে প্রতিধ্বনি, প্রাণ খুজে মরে প্রতিপ্ৰাণ । জগৎ আপনা দিয়ে খুজিছে তাহার প্রতিদান । অসীমে উঠিছে প্রেম, শুধিবারে অসীমের ঋণ— যত দেয় তত পায়, কিছুতে না হয় অবসান । যত ফুল দেয় ধরা তত ফুল পায় প্রতিদিন— যত প্ৰাণ ফুটাইছে ততই বাড়িয়া উঠে প্ৰাণ । যাহা আছে তাই দিয়ে ধনী হয়ে উঠে দীনহীন, অসীমে জগতে এ কি পিরিতির আদান-প্রদান । কাহারে পূজিছে ধরা শুামল যৌবন-উপহাবে, নিমেষে নিমেষে তাই ফিরে পায় নবীন যৌবন । প্রেমে টেনে আনে প্রেম, সে প্রেমের পাথার কোথা রে । প্রাণ দিলে প্রাণ আসে,—কোথা সেই অনন্ত জীবন । ক্ষুদ্র আপনারে দিলে, কোথা পাই অসীম আপন, সে কি ওই প্রাণহীন প্রেমহীন অন্ধ অন্ধকারে ।