পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বিতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৩০২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


२१७ রেড সী রবীন্দ্র-রচনাবলী এস চুপ করে শুনি এই বাণী স্তব্ধতার, এই অরণ্যের তলে কানাকানি জলে স্থলে, মনে করি হল বলা ছিল যাহা বলিবার। হয়তো তোমার ভাবে তুমি এক বুঝে যাবে আমার মনের মতো আমি বুঝে যাব আর ; নিশীথের কণ্ঠ দিয়ে কথা হবে দু-জনার । মনে করি ছুটি তারা জগতের এক ধারে পাশাপাশি কাছাকাছি তৃষাতুর চেয়ে আছি, চিনিতেছি চিরযুগ, চিনি নাকে কেহ কারে । দিবসের কোলাহলে প্রতিদিন যাই চলে ফিরে আসি রজনীর ভাষাহীন অন্ধকারে ; বুঝিবার নহে যাহা, চাই তাহা বুঝিবারে । তোমার সাহস আছে, আমার সাহস নাই । এই যে শঙ্কিত আলো অন্ধকারে জলে ভালো কে বলিতে পারে বলে যাহা চাও এ কি তাই । তবে ইহা থাক্ দূরে কল্পনার স্বপ্নপুরে, যার যাহা মনে লয় তাই মনে করে যাই ; এই চির-আবরণ খুলে ফেলে কাজ নাই । এস তবে বসি হেথা, বলিয়ে না কোনো কথা । নিশীথের অন্ধকারে ধিরে দিক দু-জনারে আমাদের দু-জনের জীবনের নীরবতা । দু-জনের কোলে বুকে আঁধার বাডুক স্বখে দু-জনের এক শিশু জনমের মনোব্যথা । তবে আর কাজ নাই, বলিয়ো না কোনো কথা । Şe কাতিক, bP36