পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বিতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৪৬০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8ર8 রবীন্দ্র-রচনাবলী রঘুপতি মনে মনে বলিলেন, “কলিতে ব্ৰহ্মশাপ ফলে না—দেখা যাক ব্রাহ্মণের বুদ্ধিতে কতটা হয়। দেখা যাক, গোবিন্দমাণিক্যই বা কেমন রাজা, আর আমিই বা কেমন পুরোহিত ঠাকুর ।” ত্রিপুরার প্রান্তে মন্দিরের কোণে মোগল-রাজ্যের সংবাদ বড়ো পৌছিত না । এই নিমিত্ত রঘুপতি ঢাকা শহরে গিয়া মোগলদিগের রীতিনীতি ও রাজ্যের অবস্থা জানিতে কৌতুহলী হইলেন। তখন মোগল সম্রাট শাজাহানের রাজত্বকাল । তখন তাহার তৃতীয় পুত্র ঔরংজীব দক্ষিণাপথে বিজাপুর আক্রমণে নিযুক্ত ছিলেন। তাহার দ্বিতীয় পুত্র স্বজা বাংলার অধিপতি ছিলেন–রাজমহলে তাহার রাজধানী। কনিষ্ঠ পুত্ৰ কুমার মুরাদ গুজরাটের শাসনকর্তা । জ্যেষ্ঠ যুবরাজ দারা রাজধানী দিল্লিতেই বাস করিতেছেন । সম্রাটের বয়স ৬৭ বৎসর। র্তাহার শরীর অসুস্থ বলিয়া দারার উপরেই সাম্রাজ্যের ভার পড়িয়াছে। রঘুপতি কিয়ংকাল ঢাকায় বাস করিয়া উদ্ধ ভাষা শিক্ষা করিলেন ও অবশেষে রাজমহল অভিমূখে যাত্রা করিলেন । রাজমহলে যখন পৌছিলেন, তখন ভারতবর্ষে হুলস্থুল পড়িয়া গিয়াছে। সংবাদ রাষ্ট্র হইয়াছে যে, শাজাহান মৃত্যুশয্যায় শয়ান । এই সংবাদ পাইবামাত্র স্বজ সৈন্ত সহিত দিল্লি অভিমুখে ধাবমান হইয়াছেন। সম্রাটের চারি পুত্ৰই মুমূৰু শাজাহানের মাথার উপর হইতে মুকুটটা একেবারে ছো মারিয়া উড়াইয়া লইবার উদ্যোগ করিতেছেন । ব্রাহ্মণ তৎক্ষণাং অরাজক রাজমহল ত্যাগ করিয়া হজার অনুসরণে প্রবৃত্ত হইলেন। লোকজন, বাহক প্রভৃতিকে বিদায় করিয়া দিলেন। সঙ্গে ৰে দুই লক্ষ টাকা ছিল তাহ রাজমহলের নিকটবর্তী এক বিজন প্রান্তরে পুতিয়া ফেলিলেন। তাহার উপরে এক চিহ্ন রাখিয়া গেলেন । অতি অল্প টাকাই সঙ্গে লইলেন । বন্ধ कूब्रि, भब्रिडाङ थाम, भकिंड अशरफ्ज गका कबिब ब्रचूनडि चबिश्वाथ चञ्जनद्र হইতে লাগিলেন। রঘুপতি সন্ন্যাসীর বেশ ধারণ করিলেন। কিন্তু সন্ন্যাসীর বেশ সত্ত্বেও আতিথ্য পাওয়া দুর্ঘট । কারণ পঙ্গপালের স্তায় সৈন্তের যে-পথ দিয়া চলিয়া গিয়াছে, তাহার উভয় পার্থে কেবল দুভিক্ষ বিরাজ করিতেছে । সৈন্তের আখ ও इखिनांटनब्र छछ च°क *श काफ़ैिश्च गझेब्रा निद्राप्रु । क्लवष्कब्र भब्राहेरब ७क*ि कन অবশিষ্ট নাই। চারি দিকে কেবল লুণ্ঠনবিশিষ্ট বিশৃঙ্খলা। অধিকাংশ লোক গ্রাম ছাড়িয়া পালাইয়াছে। দৈবাং যে দু-এক জনকে দেখা যায় তাহাজের बूष शंश