পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বিতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৬৫৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


હડ8 রবীন্দ্র-রচনাবলী সাহিত্যে সরলতা এবং অপ্ৰমত্ততার অভাব দেখা যায়—সকলেই অধিক করিয়া, চীৎকার করিয়া এবং ভঙ্গিমা করিয়া বলিতে ভালোবাসে, বিনা আড়ম্বরে সত্য কথাটি পরিষ্কার করিয়া বলিতে কাহারও প্রবৃত্তি হয় না । কারণ, এখনো আমাদের মধ্যে একটা আদিম বর্বরতা আছে ; সত্য প্রাঞ্চল বেশে আসিলে তাহার গভীরতা এবং অসামান্তত আমরা দেখিতে পাই না, ভাবের সৌন্দর্য কৃত্রিম ভূষণে এবং সর্বপ্রকার জাতিশয্যে ভারাক্রান্ত হইয়া না আসিলে আমাদের নিকট তাহার মর্যাদা নষ্ট হয় । সমীর কহিল,—সংষম ভরতার একটি প্রধান লক্ষণ । ভালোকেরা কোনো প্রকার গায়ে-পড়া আতিশষ্য দ্বারা আপন অস্তিত্ব উৎকট ভাবে প্রচার করে না ;–বিনয় এবং সংযমের দ্বারা তাহারা আপন মর্যাদা রক্ষা করিয়া থাকে । অনেক সময় সাধারণ লোকের নিকট সংযত সুসমাহিত ভদ্রতার অপেক্ষা আড়ম্বর এবং আতিশয্যের ভঙ্গিমা অধিকতর আকর্ষণজনক হয় কিন্তু সেটা ভদ্রতার দুর্ভাগ্য নহে, সে সাধারণের ভাগ্যদোষ । সাহিত্যে সংযম এবং আচারব্যবহারে সংযম উন্নতির লক্ষণ—আতিশয্যের দ্বারা দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টাই বর্বরতা। আমি কহিলাম,—এক-আধটা ইংরেজি কথা মাপ করিতে হইবে । যেমন ভয়লোকের মধ্যে, তেমনি ভদ্র সাহিত্যেও, ম্যানার আছে কিন্তু ম্যানারিজম নাই । ভালো সাহিত্যের বিশেষ একটি আকৃতিপ্রকৃতি আছে সন্দেহ নাই—কিন্তু তাহার এমন একটি পরিমিত সুষম যে, আকৃতিপ্রকৃতির বিশেষত্বটাই বিশেষ করিয়া চোখে পড়ে না। তাহার মধ্যে একটা ভাব থাকে, একটা গৃঢ় প্রভাব থাকে, কিন্তু কোনো অপূর্ব ভঙ্গিম থাকে না। তরঙ্গভঙ্গের অভাবে অনেক সময়ে পরিপূর্ণতাও লোকের দৃষ্টি এড়াইয়া যায়, আবার পরিপূর্ণতার অভাবে অনেক সময়ে তরঙ্গভঙ্গও লোককে বিচলিত করে, किरू ङाझे बलिम्न ७ बभ प्यन कांश ब्र७ नां श्ब cय, *ब्रिभू(डाब्र थांबनडाहे नहब ७ब५ অগভীরতার ভঙ্গিমাই দুরূহ । R স্রোতস্বিনীর দিকে ফিরিয়া কহিলাম,—উচ্চশ্রেণীর সরল সাহিত্য বুঝা অনেক সময় এষ্টজন্ত কঠিন যে, মন তাহাকে বুৰিয়া লয় কিন্তু সে আপনাকে বুৰাইতে থাকে না ; शैक्षुि कश्लि,-नभकाव्र कब्रि-त्रांछ जांभांटमब्र वरथहे निच झझेद्वांटझ् । जांब्र কখনো উচ্চ জজের পত্তিতদিগের নিকট উচ্চ অঙ্গের সাহিত্য সম্বন্ধে মত ব্যক্ত করিয়া বর্বরতা প্রকাশ করিব না। শ্ৰোতস্বিনী সেই ইংরেজ কবির নাম করিয়া কহিল,—তোমরা যতই তর্ক কয় এবং বতই গালি দাও, সে কবির কবিতা আমার কিছুতেই ভালো লাগে না ।