পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (দ্বিতীয় খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৬৭২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ఆరీక్షి রবীন্দ্র-রচনাবলী ভদ্রতার আদর্শ স্রোতস্বিনী কহিল,—দেখো, বাড়িতে ক্রিয়াকর্ম আছে, তোমরা ব্যোমকে একটু ভদ্রবেশ পরিয়া আসিতে বলিয়ো । শুনিয়া আমরা সকলে হাসিতে লাগিলাম। দীপ্তি একটু রাগ করিয়া বলিল,— ना, झांनिवांद्र कथी नञ्च ; ८ङांधब्र cबTांभएरू नांदथॉन कब्रिध्ना नांe ना बलिब्रां cन ভদ্রসমাজে এমন উন্মাদের মতো সাজ করিয়া আসে । এ-সকল বিষয়ে একটু সামাজিক শাসন থাকা দরকার । সমীর কথাটাকে ফলাইয়া তুলিবার অভিপ্রায়ে জিজ্ঞাসা করিল,—কেন দরকার ? দীপ্তি কহিল,—কাব্যরাজ্যে কবির শাসন যেমন কঠিন, কবি যেমন ছন্দের কোনো শৈথিল্য, মিলের কোনো ক্রটি, শব্দের কোনো রূঢ়তা মার্জনা করিতে চাহে না— আমাদের আচারব্যবহার বসনভূষণ সম্বন্ধে সমাজ-পুরুষের শাসন তেমনি কঠিন হওয়া উচিত, নতুবা সমগ্র সমাজের ছন্দ এবং সৌন্দর্য কখনোই রক্ষ হইতে পারে না। किङि कश्लि,-८दTांभ ८वक्रॉब्र शनेि भांश्य न इहेब्रा तक श्ङ, उांश झ्हेरण এ কথা নিশ্চয় বলিতে পারি, ভট্টিকাব্যেও তাহার স্থান হুইত, না ; নিঃসন্দেহ তাহাকে মুগ্ধবোধের স্বত্র অবলম্বন করিয়া বাস করিতে হইত । আমি কহিলাম,—সমাজকে স্বন্দর, স্বশিষ্ট, স্বশৃঙ্খল করিয়া তোলা আমাদের সকলেরই কর্তব্য সে-কথা মানি কিন্তু অন্তমনস্ক ব্যোম বেচারা যখন সে কর্তব্য বিশ্বত হইয়া দীর্ঘ পদবিক্ষেপে চলিয়া যায় তখন তাহাকে মন্দ লাগে না । দীপ্তি কহিল,—ভালো কাপড় পরিলে তাহাকে আরও ভালো লাগিত । ক্ষিতি কহিল,—সত্য বলে দেখি, ভালো কাপড় পরিলে ব্যোমকে কি ভালো দেখাইত ? হাতির যদি ঠিক ময়ূরের মতো পেখম হয় তাহা হইলে কি তাহার সৌন্দর্ধবৃদ্ধি হয়। আবার ময়ূরের পক্ষেও হাতির লেজ শোভা পায় না—তেমনি আমাদের ব্যোমকে সমীরের পোশাকে মানায় না, আবার সমীর যদি ব্যোমের পোশাক পরিয়া জালে উহাকে ঘরে ঢুকিতে দেওয়া যায় না। সমীর কহিল,—আসল কথা, বেশভূষা আচারব্যবহারের খলন যেখানে শৈথিলা, অজ্ঞতা ও জড়ত্ব স্বচনা করে সেইখানেই তাহা কদৰ্ধ দেখিতে হয় । সেই জন্য আমাদের বাঙালিসমাজ এমন ঐবিহীন। লক্ষ্মীছাড়া যেমন সমাজছাড়া তেমনি বাঙালিসমাজ যেন পৃথ্বীসমাজের বাহিরে। হিন্দুস্থানীর সেলামের মতে বাঙালির ८कांप्नों नॉषांब्र१ अठियांनन नॉहे । डांहांब्र कांब्रण, बांडानि ८कबण घ८ब्रब्र ८हरण,