পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১১১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মহুয়া তোমার মানসভোজে সযত্বে সাজালে ষে ভাবরসের পাত্র বাণীর তৃষায়, তার সাথে দিব না মিশায়ে ষা মোর ধূলির ধন, যা মোর চক্ষের জলে ভিজে আজো তুমি নিজে হয়তো বা করিবে রচন মোর স্মৃতিটুকু দিয়ে স্বপ্নাবিষ্ট তোমার বচন । ভার তার না রহিবে, না রহিবে দায় । হে বন্ধু, বিদায় । মোর লাগি করিয়ো না শোক, আমার রয়েছে কর্ম, আমার রয়েছে বিশ্বলোক । মোর পাত্র রিক্ত হয় নাই, শূন্তেরে করিব পুর্ণ, এই ব্ৰত বহিব সদাই । উৎকণ্ঠ আমার লাগি কেহ যদি প্রতীক্ষিয়া থাকে সে-ই ধন্য করিবে আমাকে । শুক্লপক্ষ হতে আনি রজনীগন্ধার বৃস্তখানি যে পারে সাজাতে অৰ্ঘ্যথালা কৃষ্ণপক্ষ রাতে, যে আমারে দেখিবারে পায় অসীম ক্ষমায় ভালোমন্দ মিলায়ে সকলি, এবার পুজায় তারি আপনারে দিতে চাই বলি । তোমারে যা দিয়েছিকু, তার পেয়েছ নিঃশেষ অধিকার । হেথা মোর তিলে তিলে দান, করুণ মুহূর্তগুলি গওয ভরিয়া করে পান হৃদয়-অঞ্জলি হতে মম।