পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১২৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বনবাণী নতশীর্ষ বিলুষ্ঠিতে খামসৌম্যচ্ছায়াতলে তব,— প্রাণের উদার রূপ, রসরূপ নিত্য নব নব, বিশ্বজয়ী বীররূপ, ধরণীর বাণীরূপ তার লভিতে আপন প্রাণে। ধ্যানবলে তোমার মাঝার গেছি আমি, জেনেছি, সূর্যের বক্ষে জলে বহ্নিরূপে স্বষ্টিযজ্ঞে যেই হোম, তোমার সত্তায় চুপে চুপে ধরে তাই শু্যাম স্নিগ্ধরূপ ; ওগো সূর্যরশ্মিপায়ী, শত শত শতাব্দীর দিনধেনু দুহিয়া সদাই যে-তেজে ভরিলে মজ্জা, মানবেরে তাই করি দান করেছ জগৎজয়ী ; দিলে তারে পরম সম্মান ; হয়েছে সে দেবতার প্রতিস্পধী,— সে-অগ্নিচ্ছটায় প্রদীপ্ত তাহার শক্তি বিশ্বতলে বিস্ময় ঘটায় ভেদিয়া দুঃসাধ্য বিস্ত্রবাধা । তব প্রাণে প্রাণবান, তব স্নেহচ্ছায়ায় শীতল, তব তেজে তেজীয়ান, সজ্জিত তোমার মাল্যে যে-মানব, তারি দূত হয়ে ওগো মানবের বন্ধু, আজি এই কাব্য-অর্ঘ্য ল’য়ে শু্যামের বাশির তানে মুগ্ধ কবি আমি অৰ্পিলাম তোমায় প্রণামী । ১১৭