পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বনবাণী 〉ミ> ঋজু দীর্ঘ দেবদারু—গিরি এরে শ্রেষ্ঠ করে জ্ঞান আপন মহিমা চেয়ে ; অন্তরে ছিল ষে তার ধ্যান বাহিরে তা সত্য হল ; উর্ধ্ব হতে পেয়েছিল ঋণ, উর্ধ্বপানে অর্ঘ্যরূপে শোধ করি দিল একদিন । আপন দানের পুণ্যে স্বর্গ তার রহিল না দূর, সুর্যের সংগীতে মেশে মৃত্তিকার মুরলীর স্বর। २8 tछjछे >७७8 শিলঙ আমেবন সে-বৎসর শান্তিনিকেতন আম্রবীথিকায় বসন্ত-উৎসব হয়েছিল। কেউবা চিত্রে কেউবা কারুশিল্পে কেউবা কাব্যে আপন অর্ঘ্য এনেছিলেন। আমি ঋতুরাজকে নিবেদন করেছিলেম কয়েকটি কবিতা, তার মধ্যে নিম্নলিখিত একটি। সে-দিন উৎসবে র্যারা উপস্থিত ছিলেন, এই আম্রবনের সঙ্গে আমার পরিচয় তাদের সকলের চেয়ে পুরাতন,— সেই আমার বালককালের আত্মীয়তা এই কবিতার মধ্যে আমার জীবনের পরাহে প্রকাশ করে গেলেম । এই আম্রবনের যে-নিমন্ত্রণ বালকের চিরবিস্মিত হৃদয়ে এসে পৌঁচেছিল আজ মনে হয় সেই নিমন্ত্রণ যেন আবার আসছে মাটির মেঠো সুর নিয়ে, রৌদ্রতপ্ত ঘাসের গন্ধ নিয়ে, উত্তেজিত শালিখগুলির কাকলিবিক্ষুব্ধ অপরাহের অবকাশ নিয়ে । তব পথচ্ছায়া বাহি বঁাশরিতে যে বাজাল আজি মর্মে তব অশ্রত রাগিণী, ওগো আম্রবন, তারি স্পর্শে রহি রহি আমারো হৃদয় উঠে বাজি,— চিনি তারে কিম্বা নাহি চিনি, কে জানে কেমন ।