পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৩২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রবীন্দ্র-রচনাবলী অস্তরে অন্তরে তব যে-চঞ্চল রসের ব্যগ্রতা আপন অস্তরে তাহা বুঝি, ওগো আম্রবন । তোমার প্রচ্ছন্ন মন আমারি মতন চাহে কথা— মঞ্জুরিতে মুখরিয়া আনন্দের ঘনগুঢ় ব্যথা ; অজানারে খুজি অামারি মতন আন্দোলন । সচকিয়া চিকনিয়া কাপে তব কিশলয়রাজি সর্ব অঙ্গে নিমেষে নিমেষে, ওগো অাম্রবন । আমিও তো আপনার বিকশিত কল্পনায় সাজি অন্তলীন আনন্দ-আবেশে অমনি নূতন । প্রাণে মোর অমনি তো দোলা দেয় সন্ধ্যায় উষায় অদৃশ্বের নিশ্বসিত ধ্বনি, ওগো অাম্রবন । আমার যে পুষ্পশোভা সে কেবল বাণীর ভূষায়, নূতন চেতনে চিত্ত আপনারে পরাইতে চায় স্বরের গাথনি— গীতঝংকারের আবরণ | যে অজস্র ভাষা তব উচ্ছ্বসিয়া উঠেছে কুসুমি ভূতলের চিরন্তনী কথা, ওগো আম্রবন, তাই বহে নিয়ে যাও, আকাশের অন্তরঙ্গ তুমি, ধরণীর বিরহবারত গভীর গোপন । সে-ভাষী সহজে মিশে বাতাসের নিশ্বাসে নিশ্বাসে,