পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৪৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বনবাণী \రిలి মধুমঞ্জরি এ লতার কোনো-একটা বিদেশী নাম নিশ্চয় আছে— জানি নে, জানার দরকারও নেই। আমাদের দেশের মন্দিরে এই লতার ফুলের ব্যবহার চলে না, কিন্তু মন্দিরের বাহিরের যে-দেবতা মুক্তস্বরূপে আছেন তার প্রচুর প্রসন্নতা এর মধ্যে বিকশিত। কাব্যসরস্বতী কোনো মন্দিরের বন্দিনী দেবতা নন, র্তার ব্যবহারে এই ফুলকে লাগাব ঠিক করেছি, তাই নতুন করে নাম দিতে হল। রূপে রসে এর মধ্যে বিদেশী কিছুই নেই, এদেশের হাওয়ায় মাটিতে এর একটুও বিতৃষ্ণা দেখা যায় না, তাই দিশী নামে একে আপন করে নিলেম । প্রত্যাশী হয়ে ছিকু এতকাল ধরি, বসন্তে আজ দুয়ারে, আ মরি মরি, ফুলমাধুরীর অঞ্জলি দিল ভরি মধুমঞ্জুরিলতা। কতদিন আমি দেখিতে এসেছি প্রাতে কচি ডালগুলি ভরি নিয়ে কচি পাতে আপন ভাষায় যেন আলোকের সাথে কহিতে চেয়েছে কথা । কতদিন আমি দেখেছি গোধূলিকালে সোনালি ছায়ার পরশ লেগেছে ডালে, সন্ধ্যাবায়ুর মৃদু-কাপনের তালে কী যেন ছন্দ শোনে । গহন নিশীথে ঝিল্লি যখন ডাকে, দেখেছি চাহিয়া জড়িত ডালের ফাকে কালপুরুষের ইঙ্গিত যেন কাকে দুর দিগন্তকোণে । প্রাবণে সঘন ধারা ঝরে ঝরঝর পাতায় পাতায় কেঁপে ওঠে থরথর,