পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বনবাণী ছন্দে গন্ধে রূপ-আনন্দে ভরা, ধরণীর ধন গগনের মন-হরা, শু্যামলের বীণা বাজিল মধুস্বর। বাংকারে ঝংকারে । আমার দুয়ারে এসেছিল নাম ভুলি পাতা-ঝলমল অঙ্কুরখানি তুলি মোর আঁখিপানে চেয়েছিল তুলি দুলি করুণ প্রশ্নরতা । তারপরে কবে দাড়াল যেদিন ভোরে ফুলে ফুলে তার পরিচয়লিপি ধরে নাম দিয়ে আমি নিলাম আপন করে মধুমঞ্জরিলতা । তারপরে যবে চলে যাব অবশেষে সকল ঋতুর অতীত নীরব দেশে, তখনো জাগাবে বসন্ত ফিরে এসে ফুল-ফোটাবার ব্যথা । বরষে বরষে সেদিনো তো বারে বারে এমনি করিয়া শূন্ত ঘরের দ্বারে এই লতা মোর আনিবে কুসুমভারে ফাগুনের আকুলত । তব পানে মোর ছিল যে প্রাণের প্রীতি ওর কিশলয়ে রূপ নেবে সেই স্মৃতি, মধুর গন্ধে আভাসিবে নিতি নিতি সে মোর গোপন কথা । ు ల(t