পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২৬২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


&8br রবীন্দ্র-রচনাবলী এরে কি আপনি রচি বাসিবে সে ভালো । হায় রে মানুষ এ যে । পরিপুর্ণ আলো সে তো প্রলয়ের তরে, স্বষ্টির চাতুরী ছায়াতে আলোতে নিত্য করে লুকোচুরি । সে-মায়াতে বেঁধেছিষ্ট মর্ত্যে মোরা দোহে আমাদের খেলাঘর, অপূর্ণের মোহে মুগ্ধ ছিন্থ, মর্ত্যপাত্রে পেয়েছি অমৃত। পুর্ণতা নির্মম সে যে স্তব্ধ অনাবৃত। २१ यांशांक्ल >७७> দূর হতে ভেবেছিন্তু মনে দুর্জয় নির্দয় তুমি, কাপে পৃথ্বী তোমার শাসনে। তুমি বিভীষিকা, দুঃখীর বিদীর্ণ বক্ষে জলে তব লেলিহান শিখা ৷ দক্ষিণ হাতের শেল উঠেছে ঝড়ের মেঘ-পানে, সেথা হতে বজ্র টেনে আনে । ভয়ে ভয়ে এসেছিন্তু দুরুহুরু বুকে তোমার সম্মুখে । তোমার ভ্ৰকুটিভঙ্গে তরঙ্গিল আসন্ন উৎপাত,— নামিল আঘাত । পাজর উঠিল কেঁপে, বক্ষে হাত চেপে শুধালেম, ‘আরো কিছু আছে না কি, আছে বাকি শেষ বজ্রপাত ? নামিল আঘাত ।