পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২৭১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পরিশেষ নামিল তোমার নম্র শিরে মানসসরোবরের অগাধ সলিলে অস্তগত তপনের সর্বশেষ আলোর মতন । প্রাণ বহু লক্ষ বর্ষ ধরে জলে তারা, ধাবমান অন্ধকার কালস্রোতে অগ্নির আবর্ত ঘুরে ওঠে। সেই স্রোতে এ ধরণী মাটির বুদবুদ ; তারি মধ্যে এই প্রাণ অণুতম কালে কণতম শিখা লয়ে অসীমের করে সে আরতি । সে না হলে বিরাটের নিখিলমন্দিরে উঠত না শঙ্খধ্বনি, মিলত না যাত্রী কোনোজন, আলোকের সামমন্ত্র ভাষাহীন হয়ে রইত নীরব । ১৪ জুলাই ১৯৩২ সার্থী তখন বয়স সাত । মুখচোরা ছেলে, একা একা আপনারি সঙ্গে হত কথা । মেঝে বসে ३¢१