পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২৭৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পরিশেষ বিরহের ছায়ামান বৈকালেতে ওই জানালায় বিজনে কেটেছে বেলা । অশথের কম্পমান পাতায় পাতায় যৌবনের চঞ্চল প্রত্যাশা পেয়েছে আপন সাড়া । সকরুণ মুলতানে গুন গুন গেয়েছি যে-গান রৌদ্রে-ঝিলিমিলি সেই নারকেলডালে কেঁপেছিল তারি স্বর। বাতাবিফুলের গন্ধ ঘুমভাঙা সাখীহার রাতে এনেছে আমার প্রাণে দূর শয্যাতল থেকে সিক্ত আঁখি আর কণর উৎকষ্ঠিত বেদনার বাণী । সেদিন সে গাছগুলি বিচ্ছেদে মিলনে ছিল যৌবনের বয়স্য আমার । তারপরে অনেক বৎসর গেল o অণরবার একা অামি । সেদিনের সঙ্গী যারা কখন চিরদিনের অন্তরালে তারা গেছে সরে । আবার অারেকবার জানলগতে বসে আছি আকাশে তাকিয়ে । আজ দেখি সে অশ্বখ, সেই নারকেল সনাতন তপস্বীর মতো । আদিম প্রাণের যে-বাণী প্রাচীনতম তাই উচ্চারিত রাত্রিদিন উচ্ছসিত পল্লবে পল্লবে। সকল পথের আরম্ভেতে সকল পথের শেষে ২৫৯