পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৫৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


88 রবীন্দ্র-রচনাবলী ধূসর প্রদোষে আজি অস্তপথ জুড়ে নিশাচর মিথ্যা চলে উড়ে । আলো-আঁধারের পাকে না মিলে কিনারা, দীর্ঘ ষে দেখায় হ্রস্ব যারা । যাচে দেশ মোহের দীক্ষারে, কঁদে দিক বিধির ধিক্কারে, ভাগ্যের ভিক্ষুক চাহে কুটিল সিদ্ধির আশীৰ্বাদ, ধূলিতে-খুটিয়া-তোলা বহুজন-উচ্ছিষ্ট প্রসাদ। কুৎসায় বিস্তারি দেয় পঙ্কে-ক্লিন্ন গ্লানি, কলহেরে শৌর্য ব’লে জানি, ভাবি, দুর্যোগের সিন্ধু তরিব হেলায় বঞ্চনার ভঙ্গুর ভেলায় । বাহিরে মুক্তিরে ব্যর্থ খুজি, অস্তরে বন্ধন করি পুজি, অশক্তি মজ্জায় রক্তে, শক্তি বলি জানি ছলনাকে, মৰ্মগত খর্বতায় সর্বকালে খর্ব করি রাখে । হে বাণীরূপিণী, বাণী জাগাও অভয়, কুজুটিক চির সত্য নয় । চিত্তেরে তুলুক উর্ধ্বে মহত্ত্বের পানে উদাত্ত তোমার আত্মদানে । হে নারী, হে আত্মার সঙ্গিনী, অবসাদ হতে লহো জিনি,— স্পধিত কুত্ৰত নিত্য যতই করুক সিংহনাদ, হে সতী সুন্দরী, আনো তাহার নিঃশব্দ প্রতিবাদ ১৭ অগস্ট ১৯২৮