পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৮২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


१२ রবীন্দ্র-রচনাবলী তুচ্ছতারে দাহে তার অবজ্ঞাদহন ; এনেছে সে করিয়া বহন ইন্দ্রাণীর গাথা মাল্য ; দিবে কণ্ঠে তার কামুকে যে দিয়েছে টংকার, কাপট্যেরে হানিয়াছে সত্যে যার ঋণী বসুমতী,— নাম কি জয়তী । ঝামরী সে যেন খসিয়া-পড়া তারা, মর্ত্যের প্রদীপে নিল মৃত্তিকার কারা। নগরে জনতামরু, সে যেন তাহারি মাঝে পথপ্রাস্তে সঙ্গিহীন তরু, তারে ঢেকে আছে নিতি । অরণ্যের সুগভীর স্মৃতি । সে যেন অকালে-ফোট কুবলয়, শিশিরে কুষ্ঠিত হয়ে রয়। মন পাথা মেলিবারে চায় চারিদিকে ঠেকে যায়, জানে না কিসের বাধা তার ; অদৃষ্টের মায়াদুর্গদ্বার কোন রাজপুত্র এসে মন্ত্রবলে ভেঙে দেবে শেষে । আকাশে আলোতে নিমন্ত্রণ আসে যেন কোথা হতে, পথ রুদ্ধ চারিধারে, মুখ ফুটে বলিতে না পারে অলক্ষ্য কী আচ্ছাদনে কেন সে আবৃত। সে যেন অশোকবনে সীতা,