পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (পঞ্চদশ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৯৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Ե-Ե রবীন্দ্র-রচনাবলী নববধু চলেছে উজান ঠেলি তরণী তোমার, দিকৃপ্রান্তে নামে অন্ধকার । কোন গ্রামে যাবে তুমি, কোন ঘাটে হে বধূবেশিনী, ওগো বিদেশিনী। উৎসবের বঁাশি কেন-ষে কে জানে ভরেছে দিনান্তবেলা স্নান মুলতানে, তোমারে পরাল সাজ মিলি সখীদল । গোপনে মুছিয়া চক্ষুজল । মৃদুশ্ৰোত নদীখানি ক্ষীণ কলকলে স্তিমিত বাতাসে যেন বলে— কত বধূ গিয়েছিল কতকাল এই স্রোত বাহি তীরপানে চাহি । ভাগ্যের বিধাতা কোনো কহেন নি কথা, নিস্তব্ধ ছিলেন চেয়ে লজ্জাভয়ে নত তরুণী কন্যার পানে, তরী পরে ছিলেন গোপনে তরণীর কাণ্ডারীর সনে ৷” কোন টানে জানা হতে অজানায় চলে আধো হাসি আধো অশ্রুজলে ! ঘর ছেড়ে দিয়ে তবে ঘরখানি পেতে হয় তারে অচেনার ধারে । ওপারের গ্রাম দেখো আছে ঐ চেয়ে, বেলা ফুরাবার আগে চলে তরী বেয়ে, ওই ঘাটে কত বধু কত শত বর্ষ বর্ষ ধরি ভিড়ায়েছে ভাগ্যভীরু তরী