পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


جه د রবীন্দ্র-রচনাবলী - সম্মত হইল বিপ্র । মোক্ষদা সত্বর প্রস্তুত হইল বাধি জিনিস-পত্তর, প্ৰণমিয়া গুরুজনে, সর্থীদলবলে ভাসাইয়া বিদায়ের শোক-অশ্রজলে । ঘাটে আসি দেখে, সেথা আগেভাগে ছুটি রাখাল বসিয়া আছে তরী’পরে উঠি নিশ্চিন্ত নীরবে । ‘তুই হেথা কেন ওরে’ মা শুধালো ; সে কহিল, ‘যাইব সাগরে ৷” ‘যাইবি সাগরে । আরে, ওরে দস্থ্য ছেলে, নেমে আয় । পুনরায় দৃঢ় চক্ষু মেলে সে কহিল দুটি কথা, ‘যাইব সাগরে । যত তার বাহু ধরি টানাটানি করে রহিল সে তরণী অঁাকড়ি । অবশেষে ব্রাহ্মণ করুণ স্নেহে কহিলেন হেসে, থাক থাক সঙ্গে যাক ’ মা রাগিয়া বলে, ‘চল তোরে দিয়ে আসি সাগরের জলে ? যেমনি সে কথা গেল আপনার কানে অমনি মায়ের বক্ষ অনুতাপবাণে বিধিয়া কাদিয়া উঠে মুদিয়া নয়ন “নারায়ণ নারায়ণ’ করিল স্মরণ । পুত্রে নিল কোলে তুলি, তার সর্বদেহে করুণ কল্যাণহস্ত বুলাইল স্নেহে । মৈত্র তারে ডাকি ধীরে চুপিচুপি কয়, ‘ছি ছি ছি, এমন কথা বলিবার নয় ? রাখাল যাইবে সাথে স্থির হল কথা— · অন্নদা লোকের মুখে শুনি সে বারত ছুটে আসি বলে, ‘বাছা, কোথা যাবি ওরে ? রাখাল কহিল হাসি, ‘চলিকু সাগরে, আবার ফিরিব মালি ? পাগলের প্রায়