পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১২ রবীন্দ্র-রচনাবলী কৈলাসশিখর হতে-দূরাগত ভৈরবের মহাসংগীতের মতো সে বাণী মন্দ্রিল মুখতন্দ্রারত ভবনে । রাজা জাগি ভাবে বৃথা রাজ্য ধন, গৃহী ভাবে মিছা তুচ্ছ আয়োজন, অশ্রু অকারণে করে বিসর্জন বালিকা । যে ললিত সুখে হৃদয় অধীর মনে হল তাহা গত যামিনীর স্থলিত দলিত শুষ্ক কামিনীর । মালিকা । বাতায়ন খুলে যায় ঘরে ঘরে, . ঘুম-ভাঙা আঁখি ফুটে থরে থরে অন্ধকার পথ কৌতুহলভরে নেহারি । ‘জাগো, ভিক্ষা দাও’ সবে ডাকি ডাকি স্বপ্ত সৌধে তুলি নিদ্রাহীন আঁখি শূন্ত রাজবাটে চলেছে একাকী ভিখারি । ফেলি দিল পথে বণিকধনিক মুঠি মুঠি তুলি রতনকণিকা, কেহ কণ্ঠহার, মাথার মণিকা 噪 কেহ গো । ধনী স্বর্ণ আনে থালি পূরে পূরে, সাধু নাহি চাহে, পড়ে থাকে দূরে— ভিক্ষু কহে, ভিক্ষ আমার প্রভূরে il দেহো গো ।” বসনে ভূষণে ঢাকি গেল ধূলি, কনকে রতনে খেলিল বিজুলি,