পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৬ রবীন্দ্র-রচনাবলী দুর্গে দ্বিপ্রহর বাজে, ক্ষান্ত দিয়া কর্মকাজে বিশ্রাম করিছে পুরবাসী । একতারে দিয়ে তান রামদাস গাহে গান আনন্দে নয়নজলে ভাসি, ‘ওহে ত্ৰিভূবনপতি, বুঝি না তোমার মতি, কিছুই অভাব তব নাহি, হৃদয়ে হৃদয়ে তবু ভিক্ষ মাগি ফির প্রভূ, সবার সর্বস্বধন চাহি ? অবশেষে দিবসান্তে নগরের এক প্রাস্তে নদীকূলে সন্ধ্যাহ্মান সারি— ভিক্ষা অন্ন রাধি সুখে গুরু কিছু দিলা মুখে, প্রসাদ পাইল শিষ্য র্তারিa রাজা তবে কহে হাসি, ‘নৃপতির গর্ব নাশি করিয়াছ পথের ভিক্ষুক— প্রস্তুত রয়েছে দাস, আরো কিবা অভিলাষ, গুরু কাছে লব গুরু দুখ । গুরু কহে, তবে শোন, করিলি কঠিন পণ, অনুরূপ নিতে হবে ভার— s এই আমি দিলু কয়ে মোর নামে মোর হয়ে রাজ্য তুমি লহে পুনর্বার। তোমারে করিল বিধি ভিক্ষুকের প্রতিনিধি, o রাজ্যেশ্বর দীন উদাসীন । § পালিবে যে রাজধর্ম র্জেনে তাহ মোর কর্ম, রাজ্য লয়ে রবে রাজ্যহীন । . . . ‘বৎস, তবে এই লহে মোর আশীৰ্বাদসহ আমার গেরুয়া গাত্রবাস— বৈরাগীর উত্তরীয় পতাকা করিয়া নিয়ো’ কহিলেন গুরু রামদাস ।