পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Ֆb রবীন্দ্র-রচনাবলী নিঃশব্দ শিষ্যের মতো । নিভৃত আশ্রম উঠিল চকিত হয়ে ; মহর্ষি গৌতম কহিলেন, “বংসগণ, ব্রহ্মবিদ্যা কহি, করো অবধান ।” । 嘯 হেনকালে অর্ঘ্য বহি করপুট ভরি, পশিলা প্রাঙ্গণতলে তরুণ বালক ; বন্দি ফলফুলদলে ঋষির চরণপদ্ম, নমি ভক্তিভরে কহিল কোকিলকণ্ঠে সুধান্নিগ্ধস্বরে, ভগবন, ব্রহ্মবিদ্যাশিক্ষা-অভিলাষী আসিয়াছি দীক্ষণতরে কুশক্ষেত্রবাসী সত্যকাম নাম মোর ” শুনি স্মিতহাসে ব্রহ্মর্ষি কহিলা তীরে স্নেহশান্ত ভাষে, ‘কুশল হউক সৌম্য। গোত্র কী তোমার ? বংস, শুধু ব্রাহ্মণের আছে অধিকার ব্রহ্মবিদ্যালাভে ’ বালক কহিল ধীরে, ‘ভগবন, গোত্র নাহি জানি । জননীরে শুধায়ে আসিব কল্য, করো অনুমতি । এত কহি ঋষিপদে করিয়া প্ৰণতি গেল চলি সত্যকাম, ঘন-অন্ধকার বনবীথি দিয়া । পদব্রজে হয়ে পার ক্ষীণ স্বচ্ছ শাস্ত সরস্বতী, বালুতীরে সুপ্তিমেীন গ্রামপ্রান্তে জননীকুটীরে করিলা প্রবেশ । । ঘরে সন্ধ্যাদীপ জ্বালা ; দাড়ীয়ে দুয়ার ধরি জননী জবালা