পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৩৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কথা কহিল রমণী ললিত কণ্ঠে, নয়নে জড়িত লজ্জা, ‘ক্ষমা করে মোরে কুমার কিশোর, দয়া কর যদি গৃহে চলে মোর, এ ধরণীতল কঠিন কঠোর এ নহে তোমার শয্যা ।” সন্ন্যাসী কহে করুণ বচনে, ‘অয়ি লাবণ্যপুঞ্জে, এখনো অামার সময় হয় নি, যেথায় চলেছ যাও তুমি ধনী, সময় যেদিন আসিবে আপনি যাইব তোমার কুঞ্জে ।” সহসা ঝঞ্চা তড়িৎশিখায় মেলিল বিপুল অাস্য । রমণী কঁাপিয়া উঠিল তরাসে, প্রলয়শঙ্খ বাজিল বাতাসে, অণকাশে বজ্র ঘোর পরিহাসে হাসিল অট্টহাস্য । বর্ষ তখনো হয় নাই শেষ, এসেছে চৈত্রসন্ধ্যা । বাতাস হয়েছে উতলা আকুল, পথতরুশাখে ধরেছে মুকুল, রাজার কাননে ফুটেছে বকুল পারুল রজনীগন্ধা । অতি দূর হতে আসিছে পবনে বাশির মদির মন্দ্র ।

  •  :)