পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৪২৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শারদোৎসব 8}} দ্বিতীয় বালক। সে বেশ মজা হবে। তৃতীয় বালক। সে কী খেলা ঠাকুর ? চতুর্থ বালক । সে কেমন করে খেলতে হয় ? সন্ন্যাসী। তবে এক কাজ করে। ওই কাশবন থেকে কাশ তুলে নিয়ে এসো। আচল ভীরে ধানের মঞ্জরী আনতে হবে। আর, তোমরা আজ শিউলিফুলের মালা গেঁথে ওইখানে ফেলে রেখে গেছ, সেগুলো নিয়ে এসো। প্রথম বালক। কী করতে হবে ঠাকুর ? সন্ন্যাসী । আমাকে তোমরা সাজিয়ে দেবে— আমি হব শারদোৎসবের পুরোহিত । সকলে । ( হাততালি দিয়া ) হুঁ, ই, ই ! সে বড়ো মজাই হবে । [ কাশগুচ্ছ প্রভৃতি আনিয়া ছেলেরা সকলে মিলিয়া সন্ন্যাসীকে সাজাইতে প্রবৃত্ত হইল একদল লোকের প্রবেশ প্রথম ব্যক্তি। ওরে ছোড়াগুলো, সন্ন্যাসী কোথায় গেল রে ? দ্বিতীয় ব্যক্তি । কই বাবা, সন্ন্যাসী কই ? বালকগণ । এই-যে আমাদের সন্ন্যাসী । প্রথম ব্যক্তি । ও তো তোদের খেলার সন্ন্যাসী ! সত্যিকার সন্ন্যাসী কোথায় গেলেন ? সন্ন সঃ্যাসী । সত্যিকার সন্ন্যাসী কি সহজে মেলে ? আমি এই ছেলেদের সঙ্গে মিলে rাসী-সন্ন্যাসী খেলছি । প্রথম ব্যক্তি । ও তোমার কী রকম খেলা গা ! দ্বিতীয় ব্যক্তি । ওতে যে অপরাধ হবে । তৃতীয় ব্যক্তি। ফেলে ফেলো, তোমার জটা ফেলো । চতুর্থ ব্যক্তি। দেপো-না, আবার গেরুয়া পরেছে ! সন্ন্যাসী। জটাও ফেলব, গেরুয়াও ছাড়ব, সবই হবে, খেলাটা সম্পূর্ণ হয়ে যাক । প্রথম ব্যক্তি। তবে যে আমাদের কে একজন বললে কোথাকার কোন একজন স্বামী এসেছে ! সন্ন্যাসী । যদি বা এসে থাকে তাকে দিয়ে তোমাদের কোনো কাজ হবে না। দ্বিতীয় ব্যক্তি। কেন ? সে ভণ্ড নাকি ? সন্ন্যাসী । তা নয় তো কী ?