পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৫৫০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


άφ8 রবীন্দ্র-রচনাবলী গান শিখেছিল তার চাদের আলোতে তব মুখ হতে । আজি সেই পঞ্চাশটি শুক শুকনারী বসি সারি সারি,— তোমাদের অনন্ত শয়নগৃহদ্বারে চির অন্ধকারে— তোমারি রচিত স্বর্ণ ছন্দের পিঞ্জরে k বাধা চিরদিন শতবর্ষ এক গান গাহে এক স্বরে বিশ্রামবিহীন— ওগো কবি চোর, হি ভাঙে তোমাদের চিরঘুমঘোর । s F পিয়াসী এখনো ভোরের অলস নয়নে তন্দ্রা ভাঙে নি ভালো আকাশের কোণে বনের আড়ালে জাগিছে ধূসর আলো। এখনো বাতাসে রয়েছে শিশির, ফোটে নি সকল কুঁড়ি— মেলি দুটি আঁখি পাখা ঝাড়ি পাখি করিতেছে উড়ি-উড়ি। নূতন তৃণের উঠিছে গন্ধ মন্দ প্রভাত-বায়ে, তুমি একাকিনী কুটিরবাহিরে বসিয়া অশখছায়ে নবীননবনীনিন্দিত করে দোহন করিছ দুগ্ধ— শূন্তপাত্র হাতে লয়ে আমি দাড়ায়ে তৃষিত মুগ্ধ! আম্রকাননে ধরেছে মুকুল ঝরি পড়ে পথপাশে— গুঞ্জনস্বরে দুয়েকটি করে মৌমাছি উড়ে আসে । কাঠালের গাছে একটি কোকিল ডাকিছে করুণা-মাথা, আঁধার পথের দু ধারে কঁাপিছে তরুণ বঁাশের শাখা !