পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (সপ্তম খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


& 8 রবীন্দ্র-রচনাবলী যাহা ছিল সে সকলি ফেলিয়া এসেছি চলি— ভিক্ষণমাত্র সার।’ সহসা বিস্মৃতি ছুটে, সাধু ফুকারিয়া উঠে, ‘ठेिक दर्दा ठेिक । এক দিন নদীতটে কুড়ায়ে পেয়েছি বটে পরশমানিক । যদি কভু লাগে দানে সেই ভেবে ওইথানে পুতেছি বালুতে— নিয়ে যাও হে ঠাকুর, দুঃখ তব হবে দূর ছুতে নাহি ছুতে।” বিপ্র তাড়াতাড়ি আসি খুড়িয়া বালুকারাশি পাইল সে মণি, লোহার মাদুলি দুটি সোনা হয়ে উঠে ফুটি, ছুইল যেমনি । ব্রাহ্মণ বালুর পরে বিস্ময়ে বসিয়া পড়ে— ভাবে নিজে নিজে । যমুনা কল্লোলগানে চিন্তিতের কানে কানে কহে কত কী যে ! নদীপারে রক্তছবি দিনাস্তের ক্লাস্ত রবি গেল অস্তাচলে— তখন ব্রাহ্মণ উঠে সাধুর চরণে লুটে কহে অশ্রুজলে, "যে ধনে হইয়া ধনী মণিরে মান না মণি তাহারি খানিক মাগি আমি নতশিরে। এত বলি নদীনীরে ফেলিল মানিক । ২৯ আশ্বিন ১৩০৬