পাতা:রাসেলাস.djvu/২১১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


९०० রাসেলাস । কথা বাৰ্ত্ত প্রণালীবদ্ধ এবং তিনি অর্থ প্রকাশের রীক্তি উত্তমরূপ জানেন । ” “ওঁtহার যেরূপ বিদ্য ও যেরূপ অভিজ্ঞতা, সৌজন্য ও দয়াও তাঁহার অহরূপ । ধন দিয়া অথবা উপদেশ ও পরামর্শ দিয়া লোকের উপকার করিলার অবকাশ পাইলে তিনি ইচ্ছা পুৰ্ব্বক অতীষ্ট বিদ্যtহশীলন ও অভিপ্রেত অতুসন্ধানেরও প্রতিবন্ধকতাচরণ করিয়া থাকেন । তিনি যে সময় কৰ্ম্মে নিতান্ত ব্যস্ত হইয়া নিৰ্জ্জনে বসিয়া থাকেন, সে সময় তাহার আমুকুল্য চাহিলেও তিনি তৎক্ষণাৎ ভাহকে নিকটে যাইতে দেন । তিনি কহেন আলস্য ও আমোদ প্রমোদকে আমি দুর করিয়া দিয়াছি, কিন্তু দামের দ্বার রুদ্ধ করিতে কোন ক্রমেই সম্মত নহি । গ্রহমণ্ডলীর বিষয় অমুখ্যান কর জগদীশ্বরের অনভিগ্রেত নহে, কিন্তু সৎকর্মের অনুষ্ঠান বিহিত ও আদিষ্ট।” ইমলাকের কথা শুনিয়া রাজকুমারী সিদ্ধান্ত করিলেন যে, ঐ ক্ত্যোতিৰ্ব্বিদই যথার্থ সুখী । ইমলাক কহিলেন, “ আমি সৰ্ব্বদাই উহার নিকট গতাগতি করিয়! থাকি এবং যত উtহার কথা বাৰ্ত্তা শুনি, ততই প্রীত হই । তিনি অহকৃত নহেন অথচ উহাকে দেখিলে মনে ভয় জন্মে । তিনি লোকচিারের অধীন নহেন অথচ সকলকে প্রিয়বাক্যে সম্ভাষণ করিয়া থাকেন। রাজকুমারি! আমিও প্রথমে তোমায়ই মত ঐ রূপ স্থির করিয়াছিলাম,