পাতা:লিপিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১২৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বুড়োর যৌবন যেন ফিরে এল। সে গাছের তলায় বসে পুতুল গড়ে আর সুভদ্রা কাক তাড়ায়, আর দূরে ইদারায় বলদে র্ক্যা-র্কে করে জল টানে। একে একে ষোলোটা মোহর গাথা হল, হার পূর্ণ হয়ে উঠল। মা বললে, “এখন বর এলেই হয়।” সুভদ্র বুড়োর কানে কানে বললে, “দাদাভাই, বর ঠিক আছে।” দাদা বললে, “বল ত দাদী, কোথায় পেলি বর।” সুভদ্রা বললে, “যেদিন রাজপুরীতে গেলেম, দ্বারী বললে কি চাও ? আমি বললেম, রাজকন্যাদের কাছে পুতুল বেচুতে চাই। সে বললে, এ পুতুল এখনকার দিনে চলবে না,—বলে’ আমাকে ফিরিয়ে দিলে। একজন মানুষ আমার কান্না দেখে বললে, দাও ত, ঐ পুতুলের একটু সাজ ফিরিয়ে দিই, বিক্রি হয়ে যাবে। সেই মানুষটিকে তুমি যদি পছন্দ কর, দাদা, তাহলে আমি তার গলায় মালা দিই।” বুড়ে জিজ্ঞাসা করলে, “সে আছে কোথায় ?” নাৎনী বললে, “ঐ যে বাইরে পিয়াল গাছের তলায়।”