পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (চতুর্থ সম্ভার).djvu/১৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গ্রীকান্ত म८ब भट्टन बनिणांभ, अनूठे ! किरु 4 उॉरलाई श्ण cष, ७कधकांब्र कषां शिग्री আসিলাম । রাজলক্ষ্মী এ বিবাহে যে লেশমাত্র আপত্তি করিবে না এ কথা আমি নিঃসংশয়ে বিশ্বাস করিয়াছিলাম । ২ স্টেশনে পদার্পণ মাত্র ট্রেন ছাড়িয়া গেল ; পরেরটা আসিতে ঘন্টা-দুই দেরি—সময় কাটাইবার পন্থা খুজিতেছি—বন্ধু জুটিয়া গেল। একটি মুসলমান যুবক আমার প্রতি মুহূৰ্ত্ত-কয়েক চাহিয়া জিজ্ঞাসা করিল, শ্ৰীকান্ত না ? हैं । আমায় চিনতে পারলে না ? আমি গহর । এই বলিয়া সে সবেগে আমার হাত মলিয়া দিল, সশবো পিঠে চাপড় মারিল এবং সজোরে গলা জড়াইয়া ধরিয়া কহিল, চল, আমাদের বাড়ি । কোথা যাওয়া হচ্ছিল, কলকাতায় ? আর যেতে হবে না - চল । সে আমার পাঠশালার বন্ধু । বয়সে বছর-চারেকের বড়, চিরকাল আধপাগলা গোছের ছেলে—মনে হুইল বয়েসের সঙ্গে সেটা বাড়িয়াছে বই কমে নাই । তাহার জবরদস্তি পূৰ্ব্বেও এড়াইবার জো ছিল না, সুতরাং আজ রাত্রের মত সে যে আমাকে কিছুতেই ছাড়িবে না, এই কথা মনে করিয়া আমার দুশ্চিন্তার অবধি রহিল না । বলা বাহুল্য, তাহার উল্লাস ও আত্মায়তার সহিত পাল্লা দিয়া চলিবার মত শক্তি আজ আমার নাই। কিন্তু সে নাছোড়বান্দ । আমার ব্যাগটা সে নিজেই তুলিয়া লইল, কুলি ডাকিয়া বিছানাট। তাহার মাথায় চাপাইয়া দিল, জোর করিয়া বাহিরে টানিয়া আনিয়া গাড়ি ভাড়া করিয়া আমাকে কহিল, ওঠ । পরিত্রাণ নাই—তর্ক করা বিফল । বলিয়াছি গহর আমার পাঠশালার বন্ধু। আমাদের গ্রাম হইতে তাহাজের বাড়ি এক ক্রোশ দূরে, একই নদীর তীরে। বাল্যকালে তাহারই কাছে বন্দুক ছুড়িতে শিখি। তাহার বাবার একটা সেকেলে গাদাবন্দুক ছিল, সেই লইয়া নদীর ধারে, আমবাগানে, ঝোপঝাড়ে দু’জনে পাখী মারিয়া বেড়াইতাম, ছেলেবেলা কতদিন তাহাদের বাড়িতে রাত কাটাইয়াছি—তাহার মা মুড়ি গুড় দুধ কলা দিয়া আমার ফলারের যোগাড় করিয়া দিত । তাহাদের জমিজমা চাষ-আবাদ অনেক ছিল । গাড়িতে বসিয়া গহর প্রশ্ন করিল, এতদিন কোথায় ছিলি ঐকাপ্ত ? যেখানে যেখানে ছিলাম একটা সংক্ষিপ্ত বিবরণ দিলাম। জিজ্ঞাসা করিলাম, ভূমি এখন কি করো গহর ?