পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (চতুর্থ সম্ভার).djvu/৯৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ কিন্তু ছিলে কোথায় বললে না ? বলিলাম, মুরারীপুরে বাবাজীদের আখড়ার কথা মনে আছে ? রাজলক্ষ্মী কহিল, আছে বৈকি। বোর্টুনীরা ওখান থেকেই ত পাড়ায় পাড়ায় ভিক্ষে করতে আসত। ছেলেবেলার কথা আমার খুব মনে আছে। সেইখানেই ছিলাম । শুনিয়া যেন রাজলক্ষ্মীর গায়ে কাটা দিল—সেই বোষ্টমদের আখড়ায়? মা গো মা— বল কি গো ? তাদের যে শুনেচি সব ভয়ঙ্কর ইয়ুতে কাও ! কিন্তু বলিয়াই সহসা উচ্চ কণ্ঠে হাসিয়া ফেলিল। শেষে মুখে আঁচল চাপিয়া কহিল, তা তোমার অসাধ্যি কাজ নেই। আরায় যে মূৰ্ত্তি দেখেচি ! মাথায় জট পাকানো, গা-ময় রুদ্রাক্ষির মালা, হাতে পেতলের বালা—সে অপরূপ— কথা শেষ করিতে পারিল না, হাসিয়া লুটাইয়া পড়িল। রাগ করিয়া তুলিয়া বসাইয়া দিলাম। অবশেষে বিষম খাইয়া মুখে কাপড় গুজিয়া অনেক কষ্টে হাসি থামিলে বলিল, বোষ্ট্রমীরা কি বললে তোমায় ? নাক খাদ উদ্ধিপরা অনেকগুলো সেখানে থাকে যে গো ! অার একটা তেমনি প্রবল হাসির ঝোক আসিতেছিল, সতর্ক করিয়া দিয়া বলিলাম, এবার হাসলে ভয়ানক শাস্তি দেব। কাল চাকরদের সামনে মুখ বার করতে পারবে ন । রাজলক্ষ্মী সভয়ে সরিয়া বসিল, মুখে বলিল, সে তোমার মত বীরপুরুষের কাজ নয়। নিজেই লজ্জায় বেরুতে পারবে না । সংসারে তোমার মত ভীতু মানুষ আর আছে নাকি ? বলিলাম, কিছুই জানো না লক্ষ্মী। তুমি অবজ্ঞা করলে, ভীতু বললে, কিন্তু সেখানে একজন বৈষ্ণবী বলত আমাকে অহঙ্কারী-দাম্ভিক । কেন তার কি করেছিলে ? কিছুই না। সে আমার নাম দিয়েছিল নতুনগোসাই । বলতে, গোসাই তোমার মত উদাসীন বৈরাগী-মনের চেয়ে দাস্তিক মন পৃথিবীতে আর দুটি নেই। রাজলক্ষ্মীর হাসি থামিল, কহিল, কি বললে সে ? বললে, এরকম উদাসীন, বৈরাগী-মনের মানুষের চেয়ে দাম্ভিক ব্যক্তি দুনিয়ায় আর খুজে মেলে না। অর্থাৎ কিনা আমি দুৰ্দ্ধ বীর। ভীতু মোটেই নই। রাজলক্ষ্মীর মুখ গম্ভীর হইল। পরিহাসে কানও ছিল না, কহিল, তোমার উদাসী মনের খবর সে মাগী পেলে কি করে ? বলিলাম, বৈষ্ণবীদের প্রতি ওরূপ অশিষ্ট ভাষা অতিশয় আপত্তিকর। রাজলক্ষ্মী কহিল, তা জানি। কিন্তু তিনি তোমার নাম ত দিলেন নতুনগোসাই— ^ు