পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (ত্রয়োদশ সম্ভার).djvu/২৯৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্রই সহসা মুখের আবরণ সরাইয়া সুমিত্রা উঠিয়া বসিল, কহিল, নীচেকার দরজা খুলে কে যেন ঢুকলো ভারতী । বাতাস এবং বারিপাতের অবিশ্রাম ঝর ঝর শব্দের মাঝখানে আর কিছুই গুনিতে পাওয়া কঠিন। শঙ্কায় সকলেই চকিত হইয়া উঠিল, ভারতী একমুহূৰ্ত্ত কান খাড়া করিয়া মৃদুকণ্ঠে বলিল, না, কেউ নয়। অপূৰ্ব্ববাবুর চাকরটা শুধু নীচে আছে। কিন্তু পরক্ষণেই গে গিড়িতে পরিচিত পদশবো আনন্দ কলরোলে চীংকার করিয়া উঠিল, আরে এ যে দাদা ! এক হাজার, দশ হাজার, বিশ হাজার, এক লক্ষ ওয়েলকমৃ । হাতের ফল এবং বঁটি ফেলিয়া সিড়ির মুখে ছুটিয়া গিয়া বলিল, এক ক্রোর, দশ ক্রোর বিশ ক্রোর, হাজার ক্রোর গুড ইভনিং দাদা, শীগগির এসো ! সব্যসাচী ঘরে ঢুকিয়া পিঠের প্রকাও বেঁচেকা নামাইতে নামাইতে সহাস্তে কহিলেন, গুডইভ মিং ! গুডইভনিং ! গুডইভনিং । ভারতী তাহার দুই হাত নিজের হাতের মধ্যে টানিয়া লইয়া কহিল, এই দেখ দাদা, তোমার জন্যে পিচুড়ি রাধচি। ওভারকোটটা আগে খোলো। ইং—জুতোটুতো সব ভিজে গেছে, দাড়াও আগে আমি খুলে দি । এই বলিয়া সে আগে কোট খুলিবে, না হেঁট হইয়া বুটের ফিতা খুলিবে ঠিক করিতে পারিল না। চেয়ারের কাছে টানিয়া আনিয়া জোর করিয়া বসাইয়া দিয়া বলিল, আমি জুতো খুলে দি । আচ্ছা, এই বৃষ্টিতে একটা গাড়ি করে আসতে নেই! ই দাদা, ওবেল কি খেয়েছিলে ? পেট ভরেছিল ? ভালো কথা ! ঠাকুরমশায়ের হোটেলে আজ মাংস রায় হয়েচে আমি খবর পেয়েচি, আনবো দাদ। ছুটে গিয়ে এক বাটি ? খাবে ? সত্যি বল । ডাক্তার হাসিমুখে কহিলেন, আরে, এ আমাকে আজ পাগল করে দেবে না কি ! - ভারতী জুতা খুলিয়া দিয়া উঠিয়া দাড়াইয়া মাথায় তাহার হাত দিয়া বলিল, ষা ভেবেচি ঠিক তাই। ঠিক যেন নেয়ে উঠেচ এমনি ভিজে । এই বলিয়া সে অালনা হইতে তাড়াতাড়ি তোস্বালে আনিতে গেল । মিনিট-ধানেকের মধ্যে ছেলেমামুষের মত এমনি কাজ করিল যে শশী হাসিয়া ফেলিল । বলিল, আপনাকে যেন ভারতী দু-দশ বছর পরে দেখতে পেয়েচেন । ডাক্তার কহিলেন, তার চেয়েও বেশি । এই বলিয়া ভারতীর হাত হইতে তোম্বালে টানিয়া লইয়। কহিলেন, তোর অাদরের জালায় আমার প্রাণটা গেল । প্রাণ গেল ? তবে, থাকে বলে । এই বলিয়া ভারতী কৃত্ৰিম অভিমান করে डांशांब्र कण शंफ़ाश्रङ किब्रिबा शिबा वैठेि लहेब्रा वनिल । उांशब्र वकू, जषा, Նան