পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (ত্রয়োদশ সম্ভার).djvu/৪৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পথের দাবী অপূৰ্ব্ব লজ্জা পাইয়া কহিল, সে তো ঠিক কথা । তাহলে তেওয়ারী আম্বক, সে হয় ত সমস্ত জানে। এই বলিয়া সে ইতস্ততঃ বিক্ষিপ্ত জিনিসগুলোর প্রতি করুশচক্ষে চাহিল । তাহার নিরুপায়ের মত মুখের চেহারায় ভারতী আমোদ বোধ করিল। হাসিমুখে কহিল, সে জানতে পারে আর আপনি পারেন না ? আচ্ছ, কি করে জানতে হয় আপনাকে আমি শিখিয়ে দিচ্চি। এই বলিয়া সে তৎক্ষণাৎ মেঝের উপর বসিয়া পড়িয়া কুমুখের ভাঙ্গা তোরঙ্গটা হাতের কাছে টানিয়া আনিয়া কহিল, আচ্ছ, জাম-কাপড়গুলো আগে সব গুছিয়ে তুলি । এসব নিয়ে যাবার বোধ হয় তারা সময় পায়নি। এই বলিয়া সে এলোমেলো ধুতি, চাদর, পিরাণ, কোট প্রভৃতি একটির পরে একটি ভাজ করিয়া সাজাইয়া তুলিতে লাগিল। তাহার শিক্ষিত হস্তের নিপুণত কয়েক মুহূর্তেই অপূৰ্ব্বর চোখে পড়িল। এটা কি ? মুর্শিদাবাদ সিন্ধের স্কট বুঝি ? এরকম ক’ জোড়া আছে বলুন ত ? - অপূৰ্ব্ব কহিল, দ্বজোড়া । ঠিক মিলেচে । এই এখানে আর এক জোড়া, এই বলিয়া সে স্কট দুটি সাজাইয়া বাক্সে তুলিল ৷ ঢাকাই ধুতি—একটা, দুটে, তিনটে –চাদর—এক, দুই, তিন,— ঠিক মিলেচে। বোধ হয় তিন জোড়াই ছিল, না ? অপূৰ্ব্ব কহিল, ই, আমার মনে আছে, তিন জোড়াই বটে। এটা কি আলপাকার কোট ? কই ওয়েস্ট-কোট, প্যান্ট দেখচি না যে ? ও—ন, এ যে গলা-বন্ধ দেখচি । এর স্বট ছিল না, না ? অপুৰ্ব্ব বলিল, না, ওটা আলাদাই বটে। ওর স্কট ছিল না । তাহাদের গুছাইয়া তুলিয়া ভারতী আর একটা হাতে তুলিয়া কহিল, এটা দেখচি ফ্লানেল স্কট,—আপনি সেখানে টেনিস খেলতেন বুঝি ? তাহলে একট, দুটে, তিনটে, ওই আলনায় একটা, আপনার গায়ে একটা,—স্কট তাহলে পাঁচ জোড়া না ? অপূৰ্ব্ব খুশী হইয়া কহিল, ঠিক তাই। পাচ জোড়াই বটে। কাপড়ের ভাজের মধ্যে উজ্জল কি একটা পদার্থ চোখে পড়িতে টানিয়া বাহির করিয়া কহিল, এ যে সোনার চেন, ঘড়ি গেল কোথায় ? অপূৰ্ব্ব খুশী হইয়া কহিল, বাচা গেছে—চেনটা তারা দেখতে পায়নি। এটি আমার পিতৃদত্ত, তারই স্মৃতিচিহ্ন— কিন্তু ঘড়িটা ? - এই যে, বলিয়া অপূৰ্ব্ব তাহার কোটের পকেট হইতে সোনার ঘড়ি বাহির করিয়া cक्षांहेण । Yoo