পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দশম সম্ভার).djvu/২২২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ যে গোয়াল-ঘন্ধটাকে সে নিজেদের বলিয়া জানে, তাহা অপরের, এতবড় মিথ্যা উক্তির সে একটা প্রতিবাদ পর্য্যস্ত করিতে পারিল না, নীরবে বাড়ি ফিরিয়া আসিল । তাহার স্ত্রী সমস্ত বিবরণ শুনিয়া কহিল, কিন্তু রাজার আদালত খোলা আছে ত । বিপিন চুপ করিয়া রহিল। সে যত ভালমাহবই হোক, এ-কথা সে জানিত, ইংরেজ রাজার আদালতগৃহের স্ববৃহৎ দ্বার যত উন্মুক্তই থাক্ দরিদ্রের প্রবেশ করিবার পথ এতটুকু খোলা নাই। হইলও তাহাই। পরদিন বড়বাবুর লোক আসিয়া প্রাচীন ও জীর্ণ গো-শাল ভাঙিয়া লম্বা প্রাচীর টানিয়া দিল । বিপিন থানায় গিয়া খবর দিয়া আসিল, কিন্তু আশ্চৰ্য্য এই যে, শিবচরণের পুরাতন ইটের নূতন প্রাচীর যতক্ষণ না সম্পূর্ণ হইল, ততক্ষণ পৰ্য্যন্ত একটা রাঙা পাগড়িও ইহার নিকটে আসিল না। বিপিনের স্ত্রী হাতের চুড়ি বেচিয়া আদালতে নালিশ করিল, তাহাতে শুধু গহনাটাই গেল, আর কিছু হইল না । বিপিনের পিসীমা-সম্পৰ্কীয়া একজন শুভানুধ্যায়িনী এই বিপদে হরিলক্ষ্মীর কাছে গিয়া পড়িতে বিপিনের স্ত্রীকে পরামর্শ দিয়েছিলেন , তাহাতে সে নাকি জবাব দিয়েছিল, বাঘের কাছে হাত জোড় করে দাড়িয়ে আর লাভ কি পিসীম ? প্রাণ যা যাবার তা যাবে, কেবল অপমানটাই উপরি পাওনা হবে। এই কথা হরিলক্ষ্মীর কানে আসিয়া পৌঁছিলে, সে চুপ করিয়া রহিল, কিছু একটা উত্তর দেবার চেষ্টা পৰ্য্যস্ত করিল না। পশ্চিম হইতে ফিরিয়া অবধি শরীর তাহার কোনদিনই সম্পূর্ণ স্বস্থ ছিল না, এই ঘটনার মাস-খানেকের মধ্যে সে আবার জরে পড়িল। কিছুকাল গ্রামের চিকিৎসা চলিল, কিন্তু ফল যখন হইল না, তখন ডাক্তারের উপদেশমত পুনরায় তাহাকে বিদেশযাত্রার জন্য প্রস্তুত হইতে হইল । নানাবিধ কাজের তাড়ায় এবার শিবচরণ সঙ্গে যাইতে পারিল না, দেশেই রহিল । যাবার সময় সে স্বামীকে একটা কথা বলিবার জন্য মনে মনে ছট্‌ফট্‌ করিতে লাগিল, কিন্তু মুখ ফুটিয়া কোনমতেই সে এই লোকটির সম্মুখে সে-কথা উচ্চারণ করিতে পারিল না । তাহার কেবলই মনে হইতে লাগিল, এ অনুরোধ বৃথা, ইহার অর্থ সে বুঝিবে না । হরিলক্ষ্মীর রোগগ্রস্ত দেহ সম্পূর্ণ নিরাময় হইতে এবার কিছু দীর্ঘ সময় লাগিল । প্রায় বাৎসরাধিক কাল পরে সে বোলপুরে ফিরিয়া আসিল। শুধু কেবল জমিদারের আদরের পত্নী বলিয়াই নয়, সে এতবড় সংসারের গৃহিণী। পাড়ার মেয়ের দল বাধিয়া দেখিতে আসিল, যে সম্বন্ধে বড় সে আশীৰ্ব্বাদ করিল, যে ছোট সে প্রণাম করিয়া

  • )。