পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দশম সম্ভার).djvu/২৫৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


भांश्वजांद्र शृण বাড়ি চড়াও হওয়া, জিনিসপত্র ভাঙা, মেঘেমামুষের গাৱে হাত তোলা—এর শাস্তিছ'মাস জেল। সামস্তমশাই, তুমি কোমর বেঁধে দাড়াও দেখি, আমি কেমন না বাপবেটাকে একসঙ্গে জেলে পুরতে পারি। শিবু আর দ্বিরুক্তি করিল না, সম্বন্ধীর হাত ধরিয়া থানার দারোগার উদ্দেশে প্রস্থান করিল। গঙ্গামণির সকলের চেয়ে বেশী রাগ পড়িয়াছিল দেবর ও ছোটবন্ধুর উপর। লে এই লইয়া একটা হুলস্থল করিবার উদ্বেপ্তে কবাটে শিকল তুলিয়া দিয়া সেই চ্যালাকাঠ হাতে করিয়া সোজা শঙ্কুর উঠানে জাসিয়া দাড়াইল। উচ্চকণ্ঠে কহিল, কেমন গে। ছোটকৰ্ত্তা, ছেলেকে দিয়ে আমাকে মার খাওয়াৰে । এখন বাপ-বেটায় একসঙ্গে ফাটকে যাও । শন্তু সেইমাত্র তাহার এ-পক্ষের ছেলেটাকে লইয়া ফলার শেষ করিয়া দাড়াইয়াছে, বড়ভাজের মূৰ্ত্তি এবং তাহার হাতের চাল-কাঠটা দেখিয়া হতবুদ্ধি হইয়া গেল। কহিল, হয়েচে কি ? আমি ত কিছুই জানিনে । - গঙ্গামণি মুখ বিকৃত করিয়া জবাব দিল, আর স্থাক সাজতে হবে না। দারোগ আলচে, তার কাছে গিয়ে ব’লে, কিছুই জান কি না ? ছাটবে। ঘর হইতে বাহির হইয়া একটি খুটি ঠেস দিয়া নিঃশব্দে দাড়াইল। শঙ্কু মনে মনে ভয় পাইয়া কাছে আসিয়া গঙ্গামণির হাত চাপিয়া ধরিয়া কহিল, মাইরি বলচি বড়বৌঠান, আমরা কিছুই জানিনে। কথাটা যে সত্য, বড়বে তাহা নিজেও জানিত, কিন্তু তখন উদারতার সময় নয়। সে শস্তুর মুখের উপরেই ষোল-আনা দোষ চাপাইয়া, সত্য-মিথ্যায় জড়াইয়া গয়ারামের কীৰ্ত্তি বিবৃত করিল। এই ছেলেটাকে যাহারা জানে, তাহাদের পক্ষে ঘটনাটা অবিশ্বাস করা শক্ত । স্বল্পভাষিণী ছোটবোঁ এতক্ষণে মুখ খুলিল স্বামীকে কহিল, ক্যামন, যা বলেছিন্থ তাই হ’লো কি না— কতদিন বলি, ওগো, দস্তি ছোড়াটাকে আর ঘরে ঢুকতে দিয়োনি ; তোমার ছোট ছেলেটাকে না-হক মেরে মেরে কোনদিন খুন করে ফেলবে। তা গেরাহিই হয় না—এখন কথা খাটল ত ? শঙ্কু অম্বন করিা গঙ্গামণিকে কহিল, আমার দিব্যি বড়বৌঠান, দাদা সত্যি নাকি খানায় গেছে ? তাহার করুণ কণ্ঠস্বরে কতকটা নরম হইবা বড়বে জোৱ দিয়া বলিল, তোমার দিব্যি ঠাকুরপো গেছে, সঙ্গে আমাদের পাচুও গেছে। २86