পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দশম সম্ভার).djvu/২৫৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ

  • গয়া টেচাইৱা কহিল, তুই আগে খেতে দে না, তবে ত যাব। কখন সাত সকালে ছুটি মুড়ি খেয়েচি বল ত ? ক্ষিদে পায় না আমার ?

গঙ্গামণি কি একটা বলিতে যাইতেছিলেন, এমন সময় শিবু পাচুকে লইয়া থানা হইতে ফিরিয়া আসিল এবং গয়ার প্রতি চোখ পড়িবামাত্রই বারুদের মত জলিয়া উঠিয়া চীংকার করিল, হারামজাদ পাজী, আবার আমার বাড়ি ঢুকেচে ! বেরো, বেরো বলচি ৷ পাচু, ধরত শুয়োরকে। * বিছাৰেগে গয়ারাম দরজা দিয়া দৌড় মারিল । চেচাইয়া বলিয়া গেল—পেচেশালার একটা ঠ্যাং না ভেঙ্গে দিই ত আমার নামই গয়ারাম নয় । চক্ষের পলকে এই কাণ্ড ঘটিয়া গেল। গঙ্গামণি একটা কথা কহিবারও অবকাশ পাইল না । 3.” ক্রুদ্ধ শিৰু স্ত্রীকে বলিল, তোর আস্কার পেয়েই ও এমন হচ্চে। আর যদি কখন হারামজাদাকে বাড়ি ঢুকতে দিস ত তোর অতি বড় দিব্যি রইল। পাচু বলিল, দিদি, তোমাদের কি, আমারই সৰ্ব্বনাশ। কখন রাত-ভিতে লুকিয়ে আমার ঠ্যাঙেই ও ঠ্যাঙ মারবে দেখfচ । শিবু কহিল, কাল সকালেই যদি না পুলিশ-পেয়াদ দিয়ে ওর হাতে দড়ি পরাই ত জামার-ইত্যাদি ইত্যাদি । গঙ্গামণি কাঠ হইয়া বসিয়া রহিল—একটা কথাও তাহার মুখ দিয়া বাহির হইল না। ভীতু পাঁচকড়ি সে-রত্রে আর বাড়ি গেল না। এইখানে শুইয়া রহিল। পরদিন বেলা দশটার সময় ক্রোশ-দুই দুরের পথ হইতে দারোগ উপযুক্ত দক্ষিণাদি গ্রহণ করিয়া পান্ধী চড়িয়া কনেস্টবল ও চৌকিদারাদি সমভিব্যাহারে সরঞ্জমিনে তদন্ত করিতে উপস্থিত হইলেন। অনধিকার-প্রবেশ, জিনিস-পত্র তছ রুপ চ্যালাকাঠের দ্বারা স্ত্রীলোকের অঙ্গে প্রহার—ইত্যাদি বড় বড় ধারার অভিযোগ-সমস্ত গ্রামে একটা হুলস্থল পড়িয়া গেল । প্রধান আসামী গয়ারাম—তাহাকে কৌশলে ধরিয়া জানিয়া হাজির করিতেই সে কনেস্টবল চৌকিদার প্রভৃতি দেখিয়া ভয়ে কাদিয়া ফেলিয়া বলিল, আমাকে কেউ দেখতে পারে না বলে আমাকে ফাটকে দিতে চায় । দারোগ বুড়ামানুষ। তিনি আসামীর বয়স এবং কান্না দেখিয়া'দয়াপ্রচিত্তে জিজ্ঞাসা করিলেন, তোমাকে কেউ ভালবাসে না গয়ারাম ? Ն ՅԵ