পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দশম সম্ভার).djvu/২৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বাল্যকালের গল্প হীক তার হাতখানা ধরে ফেলে বললে, বড় মিঞা, এই কাজটি আর একবাৰ তোষাকে করতে হবে, দাদা। আমার খুড়ো তবু যা হোক দুটো ভাগের ভাগ দিতে চায়, কিন্তু খুড়ি বেটা এমনি শয়তান যে একটা চুমকি ঘটিতে পৰ্য্যন্ত হাত দিতে দেয় না। ওই পাগড়ী, গাল-পাট, আর পিছর মেখে লাঠি হাতে একবার গিয়ে উঠানে দাড়াবে, তোমাদের ডাকাতের হুমকি একবার ঝাড়বে, তার পর দেখে নেবো কিসে কি হয়। আমার যা-কিছু পাওনা ফেড়ে বের করে আনব । ঠিক সন্ধ্যায় আগে-ব্যাস । - লতিফ মিঞা রাজি হ’লো। লতিফ মামুদ্র দ্ব-ভাই সাজ-পোশাক পরে আজই গিয়ে খুড়োর বাড়িতে হানা দেবে ঠিক হয়ে গেল। পিছনে থাকবে হীরু । একাদশী । সারাদিনের পর দাওয়ায় ঠাই করে দিয়েচেন জগদম্বা। মুখুয্যেমশাই বলেচেন জলযোগে । সামান্ত ফল-মূল ও দুধ । বেতো ধাত—একাদশীতে অল্পাহার সহ হয় না। পাথরের বাটিতে ভাবের জলটুকু মুখে তুলেচেন, এমন সময় দরজা ঠেলে ঢুকল ভূ-ভাই লতিফ আর মামু ! ইয়া পাগড়ী, ইয়া গাল-পাট, হাতে ছ-হাতি লাঠি, কপাল-জোড়া সিদ্ধির মাখানো । মুখুয্যের হাত থেকে পাথরের বাটি দুম করে পড়ে গেল,—জগদম্ব চীংকার করে উঠলেন -- ওগো পাড়ার লোক, কে কোথায় আছো, এসে গে, ছেলে-ধয়া ঢুকেচে । b স্বমুখের ছোট মাঠটা ঘর কেটে ছোট ছোট ছেলের দল রোজ ফিঞে খেলে, আজও খেলছিল, —তারাও চেঁচাতে চেঁচাতে যে যেখানে পারলে ছুট দিলে—ওগো ছেলে-ধরা এসেচে, অনেক ছেলে ধরে নিয়ে যাচ্ছে । হীরু সঙ্গে এসেছিল বাড়ি চিনিয়ে দিতে দোরের আড়ালে লুকিয়ে ছিল—সে চাপা গলায় বললে—আর দেখ কি মিঞা, পালাও । পাড়ার লোক ধরে ফেললে আর রক্ষে নেই। বলেই নিজে মারলে ছুষ্ট । - - লতিফ মিঞাঁ সহরের আর কিছু না শুনে থাকৃ, ছেলে-ধরার জনশ্রুতি তাদের কামে এসেও পৌছেচে । চক্ষের পলকে বুঝলে এ অজামা জায়গায় এরূপ বেশে এই পিছর মাখ মুখে ধরা পড়ে গেলে দেহের একখানা হাড়ও আস্ত থাকবে না। মৃতরাং তারাও মাৱল দুট। কিন্তু ছুটলে হবে কি ? পথ অচেন, আলো এসেচে কমে-চতুকি থেকে কেবল বহুকষ্ঠের সমবেত চীংকার—ধরে ফ্যাল ধরে ফ্যাল! মেয়ে ক্যাল बाऐारात्र ! झ्ाप्ने डाइँ भाय्द काषाइ श्राणाण किन नरे, किरू बस्ने उार লতিফকে সৰাই ঘিরে ফেললে—সে প্রাণের দায়ে কাটা বন ভেঙ্গে লাফিয়ে পড়ল একটা ডোবার। তার পর সবাই পাড়ে দাড়িয়ে ছড়তে লাগল টিল। বেই মাখা २१७ } ०य-७६