পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দশম সম্ভার).djvu/৩১৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ র্যাধা-ধরা স্বনিয়ন্ত্ৰিত জীবন-যাত্রার এক তিল বাহিরে যেতে পারব না,—আমরা টাকার উপর টাকা, বাড়ির উপর বাড়ি, গাড়ির উপর গাড়ি, আমার দোতালার উপর তেতলা এবং তার উপর চৌতালা অবারিত এবং অব্যাহত উঠতে থাক—কেবল এই গোটাকতক বুদ্ধিভ্রষ্ট লক্ষ্মীছাড়া লোক না খেয়ে না দেয়ে, খালি গারে খালি পারে ঘুরে ঘুরে যদি স্বরাজ এনে দিতে পারে ত দিক, তখন না হয় তাকে ধীরে-স্বন্থে চোখ বুজে পরম আরামে রসগোল্লার মত চিবানো যাবে। কিন্তু এমন কাণ্ড কোথাও কখনো হয় না। আসল কথা, এরা বিশ্বাস করতেই পারে না স্বরাজ নাকি আবার কখন হতে পারে। তার জন্য আবার নাকি চেষ্টা করা যেতে পারে। কি হবে তাতে, কি হবে চরকায়, কি হবে দেশাত্মবোধের চর্চায় ? নিবানে দীপ-শিখার মত মনুষ্যত্ব ধুয়ে মুছে গেছে, একমাত্র হাত পেতে ভিক্ষের চেষ্টা ছাড়া কি হবে আর কিছুতে । একটা নমুনা দিই – সেদিন নারী-কৰ্ম্মমন্দির থেকে জন-দুই মহিলা ও শ্ৰীযুক্ত ডাক্তার প্রফুল্লচন্দ্র রায় মহাশয়কে নিয়ে দুর্যোগের মধ্যেই আমতা অঞ্চলে বেরিয়ে পড়েছিলাম, ভাবলাম ঋষিতুল্য ও সৰ্ব্বদেশপূজ্য ব্যক্তিটাকে সঙ্গে নেওয়ায় এ-যাত্রা আমার স্বযাত্রা হবে। হয়েও ছিল। বন্দেমাতরম্ ও মহাত্মার ও তার নিজের প্রবল জয়ধ্বনির কোন অভাব ঘটেনি এবং ওই রোগ মানুষটিকে স্থানীয় রায় বাহাদুরের ভাঙ্গ তাঞ্জামের মধ্যে সবলে প্রবেশ করানোরও আস্তরিক ও একান্ত উদ্যম হয়েছিল। কিন্তু তার পরের ইতিহাস সংক্ষেপে এইক্সপ—আমাদের যাতায়াতের ব্যয় হলো টাকা পঞ্চাশ । ঝড়ে, জলে আমাদের তত্ত্বাবধান করে বেড়াতে পুলিশেরও খরচ হয়ে গেল বোধ হয় এমনি একটা কিছু। বদ্ধিষ্ণু স্থান, উকীল, মোক্তার ও বহু ধনশালী ব্যক্তির বাস, অতএব স্থানীয় তাত ও চরকার উন্নতিকল্পে চাদ প্রতিশ্রত হলো তিন টাকা পাচ আন । তারপর আচাৰ্য্যদেব বহু পরিশ্রমে আবিষ্কার করলেন জন-দুই উকীল বিলাত কাপড় কেনেন না, এবং একজন তার বক্তৃতায় মুগ্ধ হয়ে তৎক্ষণাৎ প্রতিজ্ঞা করলেন, ভৰিন্ততে তিনি আর কিনবেন না। ফেরবার পথে প্রফুল্লচন্দ্র প্রফুল্প হয়ে আমার কানে কানে বললেন, হ্যা, জেলাটা উন্নতিশীল বটে। আর একটু লেগে থাকুন, civil disobedience cztę go "foffaf declare *Tsottoston ! আর জনসাধারণ ? সে তো সৰ্ব্বদা ভদ্রলোকেরই অমুগমন করে । এ চিত্র দুঃখের চিত্র, বেদনার ইতিহাস, অন্ধকারের ছবি ; কিন্তু এই কি শেষ কথা ? এই অবস্থাই কি এ জেলার লোক নীরবে শিরোধাৰ্য্য করে নেবে ? কারও কোন কথা, কোন ত্যাগ, কোন কর্তব্যই কি দেখা দেবে না ? বান্ধা দেশের সেবা \oets