পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দশম সম্ভার).djvu/৩৩০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


अंब्र६-नांश्छिा-म६«यंह কিন্তু আমি একটু সরে গেছি। আমি বলছিলাম যে মানুষ কেবল সত্যকারের প্রয়োজনেই স্থষ্টি করতে পারে এবং স্বষ্টি করা ছাড়া সে কখনো সত্যকারের সম্পদও পায় না। কিন্তু পরের কাছে শিখে মানুষ বড় জোর সেইটুকুই তৈরী করতে পারে, কিন্তু তার বেশী সে স্থষ্টি করতে পারে না। স্থষ্টি করাট শক্তি—সেটা দেখা যায় নাএমনকি পশ্চিমের দ্বারস্থ হয়েও না । এই শক্তির আধার নিজের প্রতি বিশ্বাস,— আত্মনির্ভরতা। কিন্তু ৰে শিক্ষা আমাদের আত্মস্থ হতে দেয় না, অতীতের গৌরবকাহিনী মুছে দিয়ে আত্মসন্মানে অবিশ্রাম আৰাত করে, কানের কাছে কেবলি শোনাতে থাকে, আমাদের পিত-পিতামহেরা কেবল ভূতের ওঝ আর মন্ত্র-তন্ত্র, দৈবজ্ঞ নিয়েই ব্যস্ত ছিলেন, তাদের কার্য্যকারণের সম্বন্ধ-জ্ঞান বা বিশ্বজগতের অব্যাহত নিয়মের ধারণাও ছিল না—তাই আমাদের এ দুর্দশা, তা হলে সে শিক্ষায় যত মজাই থাক, তার সঙ্গে অবাধ কোলাকুলি একটু দেখে-শুনে করাই ভাল। পশ্চিমের সভ্যতার আদর্শে মানুষ মারবার শত-কোটী মন্ত্র-তন্ত্র, পরের দেশে তার মুখের গ্রাস অপহরণ করার ততোধিক কলকারখানা, এ সমস্তই তার প্রয়োজনে তার নিজের মধ্যে জন্মগ্রহণ করেছে—কিন্তু ঠিক ঐ-সকল আমাদের দেশের সভ্যতার আদর্শে প্রয়োজন কি-না আমি জানি না । কিন্তু কবি বলেছেন, এই সকল মহৎ কাৰ্য্য করেছে তারা নিশ্চয় কোন একটি সত্যের জোরে । অতএব এটা আমাদের শেখ চাই, কারণ বিদ্যাটা তাদের সত্য। এবং পরক্ষণেই বলেছেন, কিন্তু শুধু ত বিষ্ঠা নয়, বিদ্যার সঙ্গে সঙ্গে শয়তানীও আছে, সুতরাং শয়তানীর যোগেই ওদের মরণ । হতেও পারে। কিন্তু ষে লোক শুধু মারণ-উচ্চাটন বিস্তে শিখে মন্ত্ৰ জপতে শুরু করেছে, তার কোনটা সত্য আর কোনটা শয়তানী নির্ণয় করা কঠিন। কবি আমাদের মুখে একটা কথা গুজে দিয়ে বলেছেন— “ঐ কথাটাই ত আমরা বার বার বলচি। ভেদবুদ্ধিটা যাদের (অর্থাৎ পশ্চিমের ) এত উগ্র, বিশ্বটাকে তাল পাকিয়ে এক এক গ্রাসে গেলবার জন্তে যাদের লোভ এতবড় হা করেচে, তাদের সঙ্গে আমাদের কোন কারবার চলতে পারে না, কেননা ওরা আধ্যাত্মিক নয়, আমরা আধ্যাত্মিক । ওরা অবিদ্যাকেই মানে, আমরা বিদ্যাকে, এমন অবস্থায় ওদের সমস্ত শিক্ষা-দীক্ষা বিষের মত পরিহার করা চাই ।” এমন কথা যদি কেউ বলেও থাকে ত খুব বেশী অম্ভায় করেছে আমার মনে হয় না। Physics, chemistry হিন্দু কি ম্লেচ্ছ এ-কথা কেউ বলে না । বিস্তার জাত নেই এ-কথা সত্য, কিন্তু তাই বলে dulture জিনিসটারও জাত নেই এ-কথা ॐडे *