পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দশম সম্ভার).djvu/৩৩৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পে শত্ৰজ্ঞকে আভিনন্দন শ্রদ্ধাস্পদ দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাস মহাশয় ত্রকরকমলেষু— হে বন্ধু, তোমার স্বদেশবাসী আমরা তোমাকে অভিবাদন করি। মুক্তিপথযাত্রী ৰত নর-নারী ষে যেখানে যত লাঞ্ছনা, যত দুঃখ, যত নিৰ্য্যাতন ভোগ করিয়াছে, হে প্রিয়, তোমার মধ্যে আজ আমরা তাহাদের সমস্ত মহিমা প্রত্যক্ষ করিয়া সগৌরবে, সবিনয়ে নমস্কার করি । সুজলা, সুফলা, গুrমলা মা আমাদের আজ অবমানিত, শৃঙ্খলিতা। মাতার শৃঙ্খলভার যত সস্তান তাহার স্বেচ্ছায় স্বন্ধে তুলিয়া লইয়াছে, তুমি তাহাদের অগ্রজ ; হে বরেণ্য, তোমার সেই সকল খ্যাত ও অধ্যাত ভ্রাতা ও ভগিনীগণের উদ্দেশে স্বতঃ-উচ্ছ্বসিত সমস্ত দেশের প্রীতি ও শ্রদ্ধার অঞ্জলি গ্রহণ কর । একদিন দেশের লোক তোমাকে ক্ষুধিত পীড়িতের আশ্রয় বলিয়া জানিয়াছিল, সেদিন সে ভুল করে নাই । কিন্তু, যে-কথা তুমি নিজে চিরদিন গোপন করিয়াছ,-- দাতা ও গ্রহীতার সেই নিভৃত করুণ সম্বন্ধ—আজও সে তেমনই গোপনে শুধু তোমাদের জন্যই থাক্ । কিন্তু আর একদিন এই বাঙ্গলাদেশ তোমাকে ভাবুক বলিয়া, কবি বলিয়া বরণ করিয়াছিল, সেদিনও সে ভুল করে নাই । সেদিন এই বাঙ্গলার নিগৃঢ় মৰ্ম্মস্থানটি উদ্‌ঘাটিত করিয়া দেখিতে, তাহার একান্ত সঞ্চিত অন্তর-বাণীটি নিরস্তর কান পাতিয়া শুনিতে, তাহাকে সমস্ত হৃদয় দিয়া উপলব্ধি করিয়া লইতে তোমার একাগ্র সাধনার অবধি ছিল না । তখন হয়তো তোমার সকল কথা বঙ্গের ঘরে ঘরে গিয়া পৌঁছায় নাই, হয়ত কাহারও রুদ্ধ দ্বারে ঘা খাইয়া সে ফিরিয়াছে, কিন্তু পথ যেখানে তাহার মুক্ত ছিল, সেখানে সে কিছুতেই ব্যর্থ হইতে পায় নাই। তাহার পরে একদিন মাতার কঠিনতম আদেশ তোমার প্রতি পৌছিল। যেদিন দেশের কাছে স্বাধীনতার সত্যকার মূল্য নির্দেশ করিয়া দিতে সৰ্ব্বস্ব পণে তোমাকে পথে বাহির হইতে হইল, সেদিন তুমি দ্বিধা কর নাই। বীর তুমি, দাতা তুমি, কবি তুমি,-তোমার ভয় নাই, তোমার মোহ নাই,—তুমি নির্লোভ, তুমি মুক্ত, তুমি স্বাধীন । রাজা তোমাকে বধিতে পারে না, স্বাৰ্থ তোমাকে জুলাইতে পারে না, সংসার তোমার কাছে হার মানিয়াছে । বিশ্বের ভাগ্য-বিধাতা তাই তোমার কাছেই দেশের শ্রেষ্ঠ বলি গ্রহণ করিলেন, তোমাকেই সৰ্ব্বলোক-চক্ষুর সাক্ষাতে দেশের স্বাধীনতার মূল্য সপ্রমাণ করিয়া দিতে হইল। ষে-কথা তুমি বার বার లినa

  • օն-ՅՎ